নেসকো লিমিটেড বগুড়া কম্পিউটার সেন্টারের কর্মচারীদের চাকুরী ফিরে পেতে সাংবাদিক সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার:নিম্ন স্বাক্ষর কারীগণ নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) বগুড়া কম্পিউটার সেন্টারের অপারেটর (আউট সোর্সিং) মোঃ আব্দুর রফিক, মোঃ মিজানুর রহমান ও মোছাঃ রুমানা আকতার পরিবার পরিজন নিয়ে বর্তমানে মানবেতর জীবন যাপন করছি। আমরা বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে (কাজ নাই মজুরী নাই) ২০০০ সাল থেকে চাকুরী করছি। পরবর্তীতে আমাদেরকে আউট সোর্সিং জনবল হিসেবে ২০০৬ সালের শেষ দিকে নিয়োগ দেয়া হয়। চাকুরীকালীন অবস্থায় উক্ত অফিসে গত জুন ২০২১ মাসে নেক্সকো লিমিটেড এর অডিট আছে। অডিট এ আমাদেরকে জিজ্ঞাসা করা হয়। লিখিত ভাবে জানতে চাইলে আমরা লিখিত জবাব দেই। এরপর ৩ জুলাই/২০২১ তারিখে নেসকো লিমিটেডের আইসিটি প্রতিনিধি জনাব মোঃ শামীম স্যার মৌখিক ভাবে কর্মস্থলে যেতে মুঠোফোনে নিষেধ করেন। এরপর দীর্ঘ প্রায় ১৫ মাস অতিবাহিত হলেও আমাদেরকে স্বপদে যোগদান করতে দেওয়া হয়নি। ফলে আমরা পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছি। এ ব্যাপারে একাধিকবার আমরা নেসকোর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেও কোন ফল পাইনি। এখানে উল্লেখ্য যে, গত ১ জুলাই/২০২১ তারিখে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্তাহ লিমিটেডের ৪ কোটিরও অধিক টাকার বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির খবর স্থানীয় একটি পত্রিকায় প্রকাশ হয়। সেই পত্রিকায় মশিউর রহমান রাজন এর নাম চলে আসে এবং অডিট কর্মকর্তাদের নিকট তিনি পরে লিখিত ভাবে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। উক্ত মশিউর রহমান (রাজন) নেসকো বিক্রয় বিতরণ বিভাগ-১ বগুড়া এর (আউট সোর্সিং) কর্মচারী । তার নিকট নেসকো লিঃ জিম্মি। উক্ত রাজন দম্ভ করে বলেন যে, নেসকো লিঃ আমার হাতের মুঠোয়। তারা তাই আমার কিছুই করতে পারবে না। আর্থিক অনিয়মের সাথে যারা জড়িত তাদের চাকুরী এখন পর্যন্ত বহাল রয়েছে। অথচ নিরপরাধ আমরা এখন চাকুরী হারিয়ে পথে বসেছি। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী, বিদ্যুত সচিব, নেসকো লিঃ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন, আমাদেরকে চাকুরীতে ফিরিয়ে নিয়ে পরিবারকে বাঁচান। এ ব্যাপারে সুদৃষ্টি কামনা করছি। এসময় উপস্থিত ছিলেন মোছাঃ রুমানা আক্তার

সর্বশেষ সংবাদ