বগুড়ার গাজীর কোটে মাদক বিক্রেতা ও মাদক সেবীদের হামলায় মহিলা সহ ৫/ ৬ জন আহত

আকাশ বগুড়া থেকেঃ বগুড়ার গাবতলী উপজেলার কাগইল ইউনিয়নের একবাড়িয়া গ্রামের গাজী বাবার কোটে মাদক বিক্রেতা ও মাদক সেবীদের হামলায় মহিলা সহ আহত ৫/৬ জন, হাসপাতালে ভর্তি, থানায় অভিযোগ। সরে জমিনে ও আহতদের পরিবার সূত্রে জানা গেছে গাজীর কোটের উন্নয়নের জন্য ছাদ ঢালায় শেষ হওয়ার পর গাজীর কোট উন্নয়ন কমিটির নেতৃবৃন্দ বাঁশ খুটি সরাতে থাকা কালে সেখানে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীরা রাস্তায় মোটর সাইকেল রেখে মাদক দ্রব্য বিক্রি ও সেবন করতে থাকে। তাদেরকে গাজীর কোটের নেতৃবৃন্দ মোটর সাইকের সরাতে বললে তারা তাদের কথা শোনা না। কাজ করা অবস্থায় বাঁশের সাথে একটি মোটর সাইকেলের ধাক্কা লেগে মোটর সাইকেলটি পড়ে যায়। এর সুত্র ধরে মাদক সেবী ও বিক্রেতা লাহিড়ীপাড়া ইউনিয়নের সাতশিমুলিয়া গ্রামের জিন্নার পুত্র এরশাদ, দোবাড়িয়া গ্রামের শাহজাহানের পুত্র রমিক, নন্দীপাড়া গ্রামের খালেকের পুত্র রাজু সহ ৮/১০ জন মিলে কমিটির একজন কাজের লোককে মারপিট করতে থাকে। তাতে গ্রামের লোকজন ও কমিটির নেতৃবৃন্দ এগিয়ে এসে বাঁধা দিলে তারা তাদেরকেও মারপিট করে ছুরিকাঘাত করে আজিজারের পুত্র রেজাউল করিম, চাঁন মিয়ার পুত্র আলমগীর,রফিকুলের কন্যা রুপা সহ ৫/৬ জন আহত হয়। গুরুতর আহতদেরকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেকে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করে। ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের ফেলে যাওয়া ২ টি মোটর সাইকেল গ্রামবাসীরা আটক করে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি গ্রহন করেছে। এ ব্যাপারের গাবতলী থানার অফিসার ইনচার্জ সনাতন চন্দ্র সরকারের সাথে কথা বললে তিনি জানান বিষয়টি সম্পর্কে জেনেছি, অভিযোগ পেলে ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাঘোপাড়া বাসষ্ট্যান্ডের মাজারটি কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠের পাশে স্থানান্তর করা হয় আকাশ বগুড়া থেকেঃ সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বগুড়া সদরের গোকুল ইউনিয়নের বাঘোপাড়া বাসষ্ট্যান্ডের মাজারটি স্থানীয় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের সহযোগীতায় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠের দক্ষিণ পাশে স্থানান্তর করা হয়েছে । সরে জমিনো ও এলাকার ধর্ম প্রাণ মুসল্লিদের সূত্রে জানা গেছে, মহাসড়কের উন্নয়ন কাজ চলা কালে সড়কের উপরে থাকা আবু নাছের রঃ এর মাজারটি থাকে। সেখান থেকে মাজারটি স্থানান্তরের জন্য নোটিশ এলে স্থানীয় কয়েকটি পক্ষের দ্বিধা দ্বন্দরের কারণে অনেকদিন থেকে মাজারটি কেউ স্থানান্তর করেনি হঠাৎ গত ১৫/১০/২২ ইং তারিখে রাতের অন্ধকারে মাজারটি কে বা কারা স্থানান্তর করে কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে নিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় মুসল্লিরা থানায় অভিযোগ দিলে থানা থেকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে বিষয়টি সমাধানের জন্য দায়িত্ব দিলে তিনি ২ সদস্য বিশিষ্ট ইউপি সদস্যদেরকে কমিটি করে দেন। তারা স্থানীয় মুসল্লিদের দায়িত্ব দিলে প্রথম স্থানান্তরিত জায়গা খুড়ে সেখান থেকে বাঘোপাড়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন দক্ষিণ পাশে শনিবার বাদ জহুরে মাজারটি স্থানান্তরিত করে শরিয়ত মোতাবেক কবর খুড়ে স্থানান্তর করা হয়। এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়ার সাথে কথা বললে তিনি জানান, শনিবার বাদ জহর মাজারটি বাঘোপাড়া ঈদগাহ মাঠের পাশে স্থান্তার করা হয়েছে বলে আমি জেনেছি তারা জানান আমাদের জানা মতে আমরা একজন আলেমের মাজার বা কবরের অসন্মান করতে পারিনা। তাই আজ সকল সমস্যার সমাধান করে ঈদগাহ মাঠের পাশে মাজারটি আমরা স্থানান্তর করলাম এবং ইসলামী শরিয়ত মতে দোয়ার আয়োজন করা হবে ইনশাল্লাহ।

সর্বশেষ সংবাদ