তানোরে ফের সক্রিয় মাটি ভেকু দস্যুরা নষ্ট হচ্ছে রাস্তা

তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোরে ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছেন ভেকু ও মাটি দস্যুরা বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এসব ভেকু দস্যুদের কারনে হেরো ট্র্যাক্টরে করে মাটি বহন করায় নষ্ট হচ্ছে রাস্তা। কাঁদা ভিজে মাটি রাস্তায় পড়ার কারনে সামান্য বৃষ্টিতে পিচ্ছিল হয়ে পড়ছে রাস্তা ঘটছে দুর্ঘটনা। উপজেলার কলমা ইউপির চকপ্রভুরাম গ্রামে ঘটে রয়েছে এমন ঘটনা। ফলে রাস্তা রক্ষার্থে স্থানীয় প্রশাসনের জোরালো অভিযানের দাবি তুলেছেন স্থানীয়রা। জানা গেছে, তানোর উপজেলার আনাচে কানাচে এমপি ফারুক চৌধুরীর নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি মোতাবেক সকল রাস্তা নতুন ভাবে পাকা করা হয়েছে। বিগত তিন বছর ধরে রাস্তার কাজ চলমান রয়েছে। কিন্তু সরকারের কোটি কোটি টাকার রাস্তা নষ্ট করে ফেলছে ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কেটে সেই মাটি হেরো ট্রাক্টরে করে পাকা রাস্তা দিয়ে বহন করার কারনে নষ্ট সহ চরম ঝুকিপুর্ণ হয়ে পড়েছে। সোমবার সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার কলমা ইউনিয়ন(ইউপির) চকপ্রভুরাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও গ্রামের পাকা রাস্তার পূর্ব দিকে আম বাগানসহ বিভিন্ন প্রজাতীর গাছ ধ্বংস করে ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কাটছেন মান্দা উপজেলা ভেকু দস্যু রাজ্জাক। সেই মাটি পাচটির মত হেরো ট্যাক্টরে করে সল্লাপাড়া দিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ঘৃতকাঞ্চন গ্রামের এক প্রবাসীর জায়গা ভরাটের জন্য। গত কয়েকদিন ধরে চলছে মাটি বহনের কাজ। অন্তত ৫-৬ কিলোমিটার রাস্তায় মাটি পড়ে কাদায় একাকার হয়ে পড়েছে। এদিকে সিত্রাংয়ের প্রভাবে দুপুরের আগে গুড়িঘুড়ি বৃষ্টি হয়। যার কারনে চরম ঝুকিপূর্ন হয়ে পড়েছে রাস্তাটি। পায়ে হেটে ছাড়া কোন যানবাহনে যাওয়া মানেই বিপদে পড়তেই হবে। ঘৃতকাঞ্চ গ্রামে যে প্রবাসী মাটি ভরাট করছেন তিনি জানান, আমার টাকায় আমি মাটি নিয়ে আসছি, তাতে যত যা হয় দেখা হবে। রাস্তা কাদা পিচ্ছিল হয়েছে সেটা সরকার দেখবে। আমার কাজ আমি করে যাব। তার সাথে থাকা আরেকজন বলেন, এসপি, ডিসি, ওসি, ইউএনও যে আসবে তাকে কিভাবে ব্যালেন্স করতে হয় জানা আছে। তারা কি সততা নিয়ে চলে সেটাও জানা আছে। আমাদের কাজে বাধা দিলে আমরাও উচিৎ শিক্ষা দিব বলে প্রচুর দাপট দেখান তারা। যে জমি কাটা হচ্ছে তার মালিক আদিবাসি চকরতিরাম গ্রামের কালিদাসের পুত্র সুনাতন। তিনি জানান, ভেকু মেশিন দিয়ে মাটি কেটে বিক্রি করছেন রাজ্জাক, আর আমাকে কোন টাকা দেওয়া লাগবে না। ভেকু মালিক রাজ্জাক জানান, দু দিন ধরে কাজ চলছে। মাটি বিক্রি করা হচ্ছে। কোন অনুমতি আছে কি না জানতে চাইলে তিনি জানান, এসব ছোট কাজ কি অনুমতি লাগবে। মাটি বহনের জন্য পাকা রাস্তা কাদায় রুপ নিয়ে পিচ্ছিল হয়ে পড়েছে এর দায় কে নিবে প্রশ্ন করা হলে উত্তরে বলেন কুদাল দিয়ে কাদা তুলে ফেলা হবে। উপজেলা প্রকৌশলী সাইদুর রহমান জানান, এত মন্দার মধ্যেও উন্নয়ন থেমে নেয়। তানোরে রাস্তার গলার কাটা ভেকু মেশিনে মাটি কেটে নতুন পাকা রাস্তা দিয়ে বহন করা। এজন্য অনেক রাস্তা নষ্ট হয়ে গেছে। আমি বিষয়টি নিয়ে নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে বসে অনুরোধ করে বলব জরুরি ভাবে অভিযান দিয়ে ব্যবস্থা নিতে। তিনি আরো বলেন যেখানে রাস্তা দিয়ে মাটি বহন করবে তাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ এবং তৃনমুল জনপ্রতিনিধিরা যেন এসব কাজে সহযোগিতা না করে বাধা প্রয়োগের মাধ্যমে সরকারী রাস্তা রক্ষার জন্য ভুমিকা পালন করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পংকজ চন্দ্র দেবনাথ জানান, আমি বাহিরে আছি, অফিসে থাকলে অবশ্যই অভিযান দিয়ে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করতাম। তারপরও বিষয়টি অতি গুরুত্বসহকারে দেখা হবে।

সর্বশেষ সংবাদ