রংপুর শিল্প ও বানিজ্য মেলায় প্রতারনার অভিযোগে ভোক্তার অভিযান ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

রংপুর প্রতিনিধি-রংপুর শিল্প ও বানিজ্য মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের সাথে প্রতারনা। অভিযোগে ভোক্তার অভিযান। দু’টি প্রতিষ্ঠানে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা। মেলা কর্তৃপক্ষে হাতে লাঞ্চিত ভোক্তার সহকারী পরিচালক আফসানা পারভীন।
জানাগেছে, রংপুর শিল্প ও বানিজ্য মেলায় ইলেক্ট্রোনিক্স পন্যের স্টলগুলোতে একটা কিনলে ১০টা ফ্রি এমন লোভোনিয় ইলেক্ট্রোনিক্স পন্যে অফার নিয়ে চলছে একাধিক প্রতিষ্ঠানে প্রতারণা। বিভিন্ন পন্যের প্রলোভন দেখানোর অভিযোগ উঠেছে ইলেক্ট্রোনিক্স পন্যের একাধিক প্রতিষ্ঠানে বিরুদ্ধে।
ক্রেতারা বলছেন, এসব পন্যের গুনগত মান ভালো নয়, দামও নেওয়া হচ্ছে অনেক বেশী। দেয়া হচ্ছে নকল পন্য। তবুও স্টল জুড়ে যেন ক্রেতাদের উপচে পড়ার ভিড়। নিজেদের পন্যের খোজে ঘুরতে দেখা যায় ক্রেতাদের। তবে মেলার পরিবেশ এবং গুনগত মান নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ক্রেতারা। সেই সাথে রয়েছে বাড়তি দাম নেওয়া এবং নকল পন্য দেয়ার অভিযোগ। বিশেষ করে ইলেকট্রনিক্স পন্য কিনে প্রতারিত হতে হচ্ছে তাদের। ইলেক্ট্রনিকস পন্য কিনে প্রতারিত হওয়ার অভিযোগে মেলায় অঙ্গনে গতকাল সোমবার অভিযান পরিচালনা করেন ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এসময় সংস্থাটি কয়েকটি স্টলে অভিযান চালায় এবং অভিযোগের সত্যতাও খুজে পায় তারা। ভোক্তার পক্ষে অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী পরিচালক আফসানা পারভীন।
এসময় দুইটি ইলেকট্রোনিক্স প্রতিষ্ঠানের ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, রংপুর। তবে অভিযোগ মানতে নারাজ মেলা কমিটি। অভিযানের এক পর্যায়ে ভোক্তার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়ে রংপুর মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এর প্রেসিডেন্ট মোঃ রেজাউল ইসলাম মিলন। লাঞ্চিত করেন ভোক্তার সহকারী পরিচালক আফসানা পারভীন ও অভিযোগকারীদের। তবে সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা মেলায় ক্রেতা ও দর্শনার্থীরা যেনো হয়রানি অথবা প্রতারণার স্বীকার না হন, সেজন্য মেলা কর্তৃপক্ষকে নজর রাখার দাবি ক্রেতা দর্শনার্থীদের।