প্রতিবন্ধীদের আত্মনির্ভরশীল হয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করতে হবে-নির্বাহী পরিচালক ডাব্লিউডিডিএফ


সঞ্জু রায়, বগুড়া: জাতীয় পর্যায়ে প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করা উইমেন উইথ ডিজএ্যাবিলিটিজ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন ( ডাব্লিউডিডিএফ) এর নির্বাহী পরিচালক আশরাফুন নাহার মিষ্টি বলেছেন, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠী এই সমাজের বোঝা নয় বরং তাদের জীবনযাত্রায় এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দিলে তারাও এদেশের সম্পদ হিসেবে গড়ে উঠবে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার এবং দেশের বিভিন্ন সামাজিক সংস্থা নানামুখী সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র তৈরির মাধ্যমে প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর সামাজিক মর্যাদা ও সকল ক্ষেত্রে গ্রহণযোগ্যতা প্রতিষ্ঠায় ইতিবাচক পরিবর্তন বয়ে এনেছে। তাই সময় এসেছে ইতিবাচক সুযোগগুলোকে কাজে লাগিয়ে আত্মনির্ভরশীল হওয়ার। তিনি এই জনগোষ্ঠীর সদস্যদের আত্মনির্ভরশীল হওয়ার মাধ্যমে দেশের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানান।
শুক্রবার বগুড়া শহরের ফুলদিঘী সিয়েস্তা হোটেলের কনফারেন্স রুমে উপজেলা পর্যায়ের ডিপিও প্রতিনিধি ও কমিউনিটি লিডারদের নিয়ে দিনব্যাপী আয়োজিত কনভেনশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আশরাফুন নাহার মিষ্টি উপরোক্ত কথাগুলি বলেন। জেলার প্রায় ১২০ জন প্রতিবন্ধী নারী সদস্যদের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এই কনভেনশনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংস্থার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর শারমিন আক্তার দোলন।
এছাড়াও প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীদের জন্যে সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন ইতিবাচক উদ্যোগ এবং সেই সুযোগ সুবিধাগুলো প্রাপ্তির পন্থা তুলে ধরে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে পর্যায়ক্রমে বক্তব্য রাখেন কাহালু উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জাহিদ হাসান রাসেল, কাহালু উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রওশন আক্তার, সোনাতলা উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুল ফেরদৌস রুম্পা, বগুড়া সদর থানার নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী ও বয়স্ক হেল্প ডেস্ক কর্মকর্তা এসআই জেবুন্নেছা মায়া, ব্লাস্ট বগুড়ার সমন্বয়কারী এ্যাড. আশরাফুন নাহার স্বপ্না এবং গণমাধ্যমকর্মী ও যুব সংগঠক সঞ্জু রায়। অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীর জীবনমান্নোয়নে নানামুখী দিকনির্দেশনা তুলে ধরে সভাপতির বক্তব্য রাখেন সংস্থার চেয়ারপারসন শিরিন আক্তার। সংস্থার বগুড়ার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর আবদুল্লাহ আল ফয়সালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে কমিউনিটির প্রতিবন্ধী নারী ও কিশোরীর প্রতি সহিংসতা সহিংসতা রোধে কিভাবে কমিউনিটি লিডার ও কমিউনিটি মবিলাইজারগণ যোগাযোগ অব্যাহত রাখতে তার একটি যোগাযোগ পদ্ধতি তুলে ধরে সেশন পরিচালনা করেন সংস্থার কর্মসূচি সমন্বয়কারী হুয়ায়ুন কবীর।
অনুষ্ঠানে প্রতিবন্ধী নারীরা একে অপরের সাথে নিজেদের জীবনের প্রতিবন্ধকতাগুলোকে জয় করে সফলতা প্রাপ্তির নানা গল্প ভাগাভাগি করে নেয়। একই সাথে নিজেদের স্ব স্ব ক্ষেত্রে থাকা দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের কল্যাণে ভূমিকা রাখার ব্রত নেন অংশগ্রহণকারীরা যা ইতিবাচক সমষ্টিগত কাজের প্রতিচ্ছবি হিসেবেই দেখছেন  ডাব্লিউডিডিএফ। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের ব্যবস্থাপনায় ছিলেন  ডাব্লিউডিডিএফ এর  হিসাব সমন্বয়কারী সামিরা হক, প্রজেক্ট ফ্যাসিলিটিটের ফারহানা খাতুন হেনা, গোলাম কিবরিয়া, মাহফুজা সিদ্দিকা মুক্তাসহ সংস্থার বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যবৃন্দ।

সর্বশেষ সংবাদ