বগুড়ায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়ায় ‘কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মূলমন্ত্র, শান্তি-শৃঙ্খলা সর্বত্র’- এই স্লোগানে পালিত হয়েছে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২২।দিবসটি উপলক্ষে শনিবার সকাল ১০টায় বগুড়া জেলা পুলিশের আয়োজনে পুলিশ লাইন্সে র‌্যালী, আলোচনা সভা, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী। র‌্যালী শেষে পুলিশ লাইন্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের অডিটোরিয়ামে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলী হায়দার চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার বলেন, ‘পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কমিউনিটি পুলিশ এগিয়ে যাচ্ছে। সমাজে শান্তি-শৃঙখলা বজায় রাখতে পুলিশ নানাভাবে চেষ্টা করে। সেই সাথে বাংলাদেশ পুলিশকে সহায়তা করছে কমিউনিটি পুলিশ। আমাদের যারা সম্মানিত জনগণ রয়েছেন আপনারা সকলেই কিন্তু কমিউনিটি পুলিশের অংশ। আর এজন্য বলতে চাই, সমাজ ব্যবস্থায় শৃঙখলা বজায় রাখতে আমাদেরই দায়িত্ব নিতে হবে।সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী আরও বলেন, ‘আমরা নানা সময়ে লক্ষ্য করেছি, পুলিশ সদস্যদের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মানুষেরা নানাভাবে সমালোচনা করে থাকেন। তাদের অনেকেই পুলিশের কঠোর পরিশ্রমকে মূল্যায়ন না করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বিষয় নিয়ে মাতামাতি করে থাকেন। অথচ সেই পুলিশ সদস্যরাই আপনাদের বিপদে কিংবা দুঃসময়ে এগিয়ে যায়। আর এ কারণেই পুলিশ বাহিনীর প্রতি আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো উচিত।’মানুষের সেবাই পুলিশ সদস্যদের ঘরে ঘরে পৌঁছে যাওয়ার অঙ্গিকার ব্যক্ত করে পুলিশ সুপার বলেন, ‘কমিউনিটি পুলিশিং ডে’-তে আমি বলতে চাই প্রতিটি মানুষের দুয়ারে দুয়ারে পুলিশের সেবা পৌঁছে যাবে। কোনো মানুষ যেন পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে না পারে সেজন্য আজ আমাদের স্লোগান হবে ‘জনতার দুয়ারে, কমিউনিটি পুলিশ’।সুন্দর সমাজ গঠনে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘একটি সুন্দর সমাজ বিনির্মানে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের গুরুত্ব অনেক। প্রতিটি এলাকায় যদি কমিউনিটি পুলিশ এবং জেলা পুলিশ সংঘবদ্ধভাবে কাজ করে তাহলে সমাজকে সন্ত্রাসমুক্ত সম্ভব। সামাজিক সুরক্ষা বলয় তৈরী করতে সমাজের প্রতিটি দায়িত্বশীল মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে।’সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বিশেষ পুলিশ সুপার (সিআইডি) মোহাম্মাদ কাউসার সিকদার, ইন সার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারের কমান্ড্যান্ট মোঃ বেলাল হোসেন, পিবিআই’র পুলিশ সুপার কাজী এহসানুল করীম, জেলা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের আহ্বায়ক মোজাম্মেল হক, জেলা শিক্ষা অফিসার হযরত আলী, বগুড়া পৌরসভা প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব শেখ, সাবেক মহিলা কাউন্সিলর স্বপ্না চৌধুরী প্রমুখ।আলোচনা সভা শেষে কমিউনিটি পুলিশিং এ বিশেষ কাজের স্বীকৃত স্বরুপ আইজিপি কর্তৃক সম্মাননা স্বারক প্রদান করা হয় কমিউনিটি পুলিশিং বগুড়া জেলা শাখার সদস্য সচিব শাহাদৎ আলম ঝুনু ও শ্রেষ্ঠ কমিউটিনি পুলিশিং সদস্য দুপচাঁচিয়া থানার এস আই শাজাহান আলীকে।