বর্তমান সরকার হিন্দু ধর্মাম্বলীদের সার্বিক দিক দিয়ে নিরাপদে রেখেছেন-রবিন খান

গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার গাবতলী উপজেলা চেয়ারম্যান ও বগুড়া পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রফি নেওয়াজ খান রবিন বলেছেন, গাবতলীতে হিন্দু-মুসলিম ভাই ভাই। এখানে সকল ধর্মের মানুষ শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে। একে অন্যের সহযোগিতায় সবাই এগিয়ে আসেন। তিনি বলেন, এদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের শারদীয় দূর্গোৎসব, হরিবাসরসহ সকল ধর্মীয় আচানুষ্ঠান শান্তিপূর্নভাবে পালন করে থাকেন। বর্তমান সরকার হিন্দু ধর্মাম্বলীদের সার্বিক দিক দিয়ে নিরাপদে রেখেছেন। গাবতলী উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ একটি অত্যান্ত শক্তিশালী এবং মডেল ইউনিট। শনিবার স্থানীয় পাইলট হলরুমে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ গাবতলী উপজেলা শাখার দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ধন্য গোপাল সিংহের সভাপতিত্বে সম্মেলনে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সাগর কুমার রায়। তিনি বলেন, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কোন রাজনৈতিক সংগঠন নয়। এই সংগঠন কোন নির্বাচনেও অংশগ্রহণ করবে না। কিন্তু এই সংগঠন বাংলাদেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের স্বার্থ সংরক্ষনের কাজ করে। সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্মেলেন্দু রায় নির্মল। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউএনও রওনক জাহান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মিলু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম মুক্তা ও রেকসেনা আক্তার, মডেল থানার ওসি সনাতন চন্দ্র সরকার, উপজেলা আ’লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউর রহমান জুয়েল, জেলা পূজা কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার দাস ও সদর উপজেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আশিষ কুমার রায়। উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক চন্দ্র শেখর রায়ের পরিচালনায় আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলা পূজা কমিটির নেতা রনজিৎ চৌধুরী, বিমল চন্দ্র রায়, শরৎ মাষ্টার, শংকর কুমার রায়, ডাঃ সুশীল কুমার শান্ত, নিকুঞ্জ কুমার পাল, পরিমল, গোপাল, গোবিন্দ, উজ্জল কুমার ঘোষ, উত্তম কুমার, মিলন সরকার, বিশু প্রাং, রাজ কুমার প্রমুখ। সম্মেলনের ২য় অধিবেশনে পূর্বের কমিটি বিলুপ্ত করে গাবতলী পুজা উদযাপন পরিষদের কমিটি ঘোষনা করা হয়। ঘোষিত কমিটির সভাপতি হলেন ধন্য গোপাল সিংহ, সিনিয়র সহ-সভাপতি রনজিৎ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক চন্দ্র শেখর রায়, যুগ্ম সম্পাদক বিমল চন্দ্র রায় এবং সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর কুমার রায়।