যমুনার পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত ধুনটে বাঁধ ভাঙ্গা বন্যায় শতাধিক হেক্টর জমির ফসল নিমজ্জিত

ধুনট , প্রতিনিধি,বগুড়া ঃ উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বগুড়ার সারিয়াকান্দি বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধ ভেঙ্গে ধুনটের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। গতকাল রোববার বিকাল ৫টা পর্যন্ত যমুনার পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৪ সে: মিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। আকষ্যিক এই বন্যায় ধুনটের চিকাশী, গোসাইবাড়ী ও ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নে কৃষকের শতাধিক হেক্টর জমির উঠতি ধান, পাট ও শাকসবজী তলিয়ে গেছে। এছাড়া অর্ধ শত বাড়ীঘরে বন্যার পানি প্রবেশ করায় লোকজন নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে পৈত্রিক ভিটা ছেড়ে অন্যত্র ছুটছে। কেউবা বাঁধের উপর ছাপড়া ঘর তুলে বসবাস করছে।
এলাকাবাসী জানান, যমুনার ভাঙ্গন ঠেকাতে বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড ধুনটের সীমান্তবর্তী সারিয়াকান্দির কামালপুরে ২০ কোটি টাকা ব্যায়ে বেড়িবাঁধ নির্মানের কাজ করছে। নির্মান কাজ শেষ হওয়ার আগেই শুক্রবার বিকেলে যমুনার পানি আকষ্যিকভাবে বৃদ্ধি পেয়ে নদীতে প্রবল ¯্রােত ও ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হয়ে বেড়িবাঁধের ২০ মিটার অংশ ধসে যায়। এতে মূহুর্তের মধ্যে ধুনটের চিকাশী, গোসাইবাড়ী ও ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নের বিস্তৃর্ন এলাকা প্লাবিত হয়ে অর্ধশত বাড়ীঘরে ইতিমধ্যে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। বন্যা কবলিত লোকজন বাঁধের উপর ও উচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে। অনেকে নিজ বসতভিটা ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয়ের সন্ধানে ছুটছে।
বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আব্দুল মোত্তালেব জানান, রোববার যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১৪ সে:মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, আকষ্যিক বন্যায় কৃষকের ৭০ হেক্টর জমির আউশ ধান, ৫০ হেক্টর জমির পাট, ১৫ হেক্টর জমির শাকসবজী ও ৫ হেক্টর জমির কাউন ক্ষেত তলিয়ে গেছে।