সাজানো বন্দুকযুদ্ধে গুলি করে হত্যাচেষ্টা এসআই আনোয়ারের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

জিটিবি নিউজ ডেস্ক : সাজানো বন্দুকযুদ্ধে গুলি করে এক ব্যক্তিকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে শেরেবাংলা নগর থানার সেই উপপরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছেন আদালত। গতকাল সোমবার ঢাকার দ্বিতীয় অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আলী মাসুদ সেখ দন্ডবিধির ৩২৬ ধারায় এই চার্জ গঠন করেন।
ওই আদালতের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) আনিসুর রহমান জানান, ৩২৬ ধারায় গুরুতর আঘাতের অভিযোগ বিচারে প্রমাণিত হলে ১০ বছর থেকে যাবজ্জীবন কারাদ- হতে পারে এ আসামির। শুনানিকালে মামলাটিতে জামিনে থাকা এসআই আনোয়ার আদালতে হাজির ছিলেন। তার পক্ষে মামলা থাকে অব্যাহতির আবেদন করেন আইনজীবী আমিনুল গণি টিটো। কিন্তু আদালত তাদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করেছেন। মামলাটিতে গত ২৩ অক্টোবর এ আসামির ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছিলেন সিএমএম আদালত।
মামলার ভিকটিম শাহ আলম মোহাম্মদপুর থানা পুলিশের গাড়ি চালাতেন। তার স্ত্রী শান্তা আক্তার ও সন্তানকে নিয়ে থাকতেন মোহাম্মদপুর বাঁশবাড়ি এলাকার একটি বাসায়। ওই সময়ই পরিচয় হয় এসআই আনোয়ারের সঙ্গে। তখন তিনি ওই থানাতে কর্মরত ছিলেন। পরবর্তীতে এসআই আনোয়ার শাহ আলমের স্ত্রী শান্তার সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এর জের ধরে প্রায় দেড় বছর আগে শান্তা স্বামীর বাসা ছেড়ে কেরানীগঞ্জের আরশিনগর বাসা ভাড়া নেয়। শান্তার নতুন ওই বাসাটি ভাড়া করে দেন এসআই আনোয়ার। তিনি মাঝেমধ্যে সেখানে যেতেন। মাঝে শান্তাকে আর খুঁজে পান নি শাহ আলম। কয়েক মাস আগে তিনি শান্তার নতুন ঠিকানা জানতে পেরে সেখানে যান এবং এসআই আনোয়ারের বিষয়ে স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিদের কাছে অভিযোগ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে আনোয়ার ওই বন্দুকযুদ্ধের সাজানো নাটক তৈরি করে। সোর্সের মাধ্যমে ২০১৪ সালের ২০ অক্টোবর রাতে শাহ আলমকে খবর দেন এসআই আনোয়ার। মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটে এলে তাকে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে চোখ বেঁধে আগারগাঁও তালতলা এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তার দুই পায়ে গুলি করে এসআই আনোয়ার হোসেন বন্দুকযুদ্ধ সাজানোর চেষ্টা করেন। পরে জানাজানি হলে বিষয়টি ধরা পড়ে এবং গ্রেপ্তার হন এসআই আনোয়ার।