থাইল্যান্ড থেকে ফেরত এল ৪৭ জন

সাগর পথে অবৈধভাবে বিদেশ যেতে গিয়ে আটকে পড়া আরও ৪৭ জন বাংলাদেশিকে ফেরত আনা হয়েছে।

সোমবার এরা থাইল্যান্ড থেকে বিমানে ফেরত আসেন। গত শুক্রবার রাতে ইন্দোনেশিয়া থেকে ১৮ জন বাংলাদেশি ফেরত এসেছিল।

এর আগে মিয়ানমার থেকে দেড়শ জনকে ফেরত এনেছিল বিজিবির টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে।

সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে (বিজি-০৮৯) ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে নামেন ৪৭ জন।

আটকে পড়া এই বাংলাদেশিদের ফেরাতে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) সহায়তা করছে।

সংস্থাটির প্রোগ্রাম অ্যাসিসটেন্ট অনিন্দ্য দত্ত বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা বিমানবন্দরে উপস্থিত থেকে প্রত্যাগত বাংলাদেশিদের কাছ থেকে কিছু তথ্য নিচ্ছেন। এরপর তাদের নিজ নিজ বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।”

তিনি জানান, ফেরত আসাদের প্রয়োজনীয় জরুরি চিকিৎসার জন্য আইওএম-এর প্রস্তুতি রয়েছে। পাশাপাশি গ্রামের বাড়ি যেতে তাদের টাকার প্রয়োজন হলে পরিবহন খরচ বাবদ কিছু টাকাও দেওয়া হবে।

যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া শেষ করতে রাত গভীর হয়ে গেলে তাদেরকে বিমানবন্দরে থাকা ও খাওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেও জানান অনিন্দ্য।

মালয়েশিয়া সীমান্তবর্তী থাইল্যান্ডের জঙ্গলে সম্প্রতি মানব পাচারকারীদের কয়েকটি আস্তানা এবং পাচারের শিকারদের কবরের সন্ধান মেলার পর অবৈধ অভিবাসী ঠেকাতে কড়া পদক্ষেপ নেয় ইন্দোনেশিয়াসহ এই তিন দেশ।

এরপর সাগরে ট্রলারে আটকে পড়েন অনেকে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জোর আহ্বানে ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার তাদের আশ্রয় দিতে রাজি হয়।

সাগরভাসাদের অধিকাংশই বাংলাদেশি ও মিয়ানমারের রোহিঙ্গা বলে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের খবর।