রাতারাতি রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধান সম্ভব নয়: সুকি

নিউজ ডেস্ক : আলোচিত রোহিঙ্গা ইস্যুতে অবশেষে মুখ খুলেছেন মিয়ানমারের বিরোধী দলীয় নেত্রী এবং শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অং সান সুকি। তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গা অতি স্পর্শকাতর ইস্যু এবং অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে এটির সমাধান করতে হবে। তবে রাতারাতি এই সমস্যার সমাধান সম্ভব নয় বলে মনে করছেন তিনি।মঙ্গলবার ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকাকে দেওয়া এক সাাৎকারে সুকি বলেন, মিয়ানমার সরকার সংখ্যালঘু গোষ্ঠীটিকে নাগরিকত্বের মর্যাদা দেয়ার বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করছে। তবে সরকরের এই প্রক্রিয়া দ্রুত এবং স্বচ্ছতার সঙ্গে শেষ করা উচিত বলে তিনি মনে করছেন।এক পর্যায়ে ওয়াশিংটন পোস্ট সুকিকে প্রশ্ন করে, যেসব রোহিঙ্গা নৌকায় করে ঝুঁকিপূর্ণভাবে দেশ ছাড়ছে তাদের কি নাগরিকত্ব দেওয়া উচিত? এই প্রশ্নে উত্তরে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের অধিকারের ইস্যুটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই অতি দ্রুত এবং সতর্কতার সঙ্গে এর সমাধান করা উচিত। তবে এ নিয়ে সরকারের আন্তরিকতা ও তৎপরতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন সুকি। তিনি আরো বলেন,‘এটি অত্যন্ত স্পর্শকাতর ইস্যু। এর সঙ্গে অনেক জাতিগত এবং ধর্মীয় গোষ্ঠী জড়িয়ে রয়েছে। ফলে এক গোষ্ঠীর জন্য কিছু করতে গেলে অন্য গোষ্ঠীগুলোর ওপর তা প্রভাব ফেলে। তাই রোহিঙ্গা সঙ্কটটি অত্যন্ত জটিল পর্যায়ে রয়েছে। রাতারাতি এর সমাধান সম্ভব নয়।’বিশ্বের অন্যতম নির্যাতীত জাতি হচ্ছে মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গারা। ২০১২ সাল থেকে তাদের অবস্থার নাটকীয় অবনতি হতে শুরু করে। সংখ্যাগুরু বৌদ্ধ গোষ্ঠীর হামলার কারণে ১ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। রাখাইন রাজ্যের এই অদিবাসীদের সম্পূর্ণরূপে উচ্ছেদ করার ষড়যন্ত্র করছে বৌদ্ধরা। ফলে সাম্প্রতিক আদমশুমারিতে এদের গণনায় ধরা হয়নি। এবং তাদের নাগরিকত্ব দিতেও রাজি নয় মিয়ানমার সরকার।