টেকনাফে গোলাগুলি ভুল বোঝাবুঝির কারণে: স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভুল বোঝাবুঝির’ কারণে উত্তেজনা থেকে কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে বিজিবি সদস্যদের ওপর মিয়ানমারের সীমান্তরীরা গুলি চালিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
গতকাল বুধবার ভোররাতে নাফ নদীর জাদিমুরা পয়েন্টে এ ঘটনায় এক বিজিবি সদস্য গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। ধরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আরেকজনকে।দুপুরে স্বারাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নাফ নদীতে দায়িত্ব পালনকালে দুই দেশের সীমান্তরী বাহিনীদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হলে একপর্যায়ে মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) গুলি চালায়।ওই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ সিপাহী বিপ্লবকে (২১) কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রামের সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।আর বিজিবির নায়েক রাজ্জাককে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর মিয়ানমার সীমান্তে একটি ক্যাম্পে রেখেছে বিজিপি।আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, “পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে শিগগিরই তাকে ফিরিয়ে আনা হবে। এ ধরনের ভুল যাতে না হয় সে বিষয়ে দুই দেশ আরও সতর্ক হবে।”টেকনাফে কি ঘটেছিল জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নাফ নদীর মাঝ বরাবর ভাগ করে দুই দেশের সীমান্তরীরা টহল দেয়। বিজিবির একটি জলযান টহল দেওয়ার সময় মাছ ধরার জালে বাধাগ্রস্ত হলে ‘সমস্যার সৃষ্টি’ হয়।তবে টেকনাফ বিজিবি ঘটনার যে বিবরণ দিয়েছে, তার সঙ্গে কামালের এই বক্তব্যের মিল নেই।
বিজিবি টেকনাফ ৪২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেনেন্ট কর্নেল আবুজার আল জাহিদ বলেন, ইঞ্জিনচালিত নৌকায় করে বিজিবির একটি দল ভোরে নাফ নদীর জাদিমুরা পয়েন্টে টহল দিচ্ছিল। একটি মাছ ধরার ট্রলার থামিয়ে তল্লাশি করছিলেন তারা।
এ সময় পূর্ব দিক থেকে আরেকটি ট্রলারে করে মিয়ানমারের বিজিপি বাহিনীর সদস্যরা এসে বিজিবির নৌকায় গুলি চালায়। ওরা গুলি করার পর বিজিবি সদস্যরাও গুলি ছুড়ে জবাব দেয়। মানবপাচারকারী বা চোরাচালানী মনে করে বিজিপি গুলি করায় ভুল বোঝাবুঝিতে অনাকাক্সিক্ষত এই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।