শেরপুরে বুদ্ধি প্রতিবন্ধিকে ধর্ষনের দায়ে আটক-১

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি: বগুড়ার শেরপুরের সোলাকুড়ি পূর্বপাড়া গ্রামের বুদ্ধি প্রতিবন্ধি মেয়ে (১৯) কে ধর্ষনের ঘটনায় ১৩ মে বুধবার রাতে শেরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে ধর্ষক মেছের আলী (৪০) কে আটক করেছে থানা পুলিশ।
জানা যায়, উপজেলা ভবানীপুর ইউনিয়নের সোলাকুড়ি পূর্বপাড়া গ্রামের মো. কুরবান আলীর মেয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধিকে গত এক বছর পূর্বে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ি গ্রামের বাবু মিয়ার সাথে বিয়ে দেয়। প্রতিবন্ধি মেয়েটা বাবা-মা ছাড়া আর কিছুই বলতে পারেনা আর সেইজন্য বিয়ের পর থেকে সোলাকুড়ি গ্রামের শ^শুরবাড়ির পাশে বাড়ি ভাড়া করে বসবাস করে আসছে তার স্বামী। অসহায় গরীব হওয়ায় গত ৯ মে পাশের বড়াইদহ গ্রামের পাশা মিয়ার বাড়িতে দিন মজুর দিতে যায়। স্বামী বাড়িতে না থাকায় ওই বুদ্ধি প্রতিবন্ধি পাশে তার মামা রফিকুল ইসলামের বাড়ি থেকে রাত ৮ টার দিকে টিভি দেখে বাড়ি ফেরার সময় একই গ্রামের মৃত লিখন আলীর ছেলে মেছের আলী তাকে ভুল বুঝিয়ে নিয়ে গিয়ে বড়াইদহ গ্রামস্থ আবেদ মির্জার ইউক্যালিপ্টাস গাছের বাগানের মধ্যে অস্ত্রের মুখে ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে।
এ ব্যাপারে গত ১৩ মে বুধবার রাতে মেয়ের বাবা মো. কুরবান আলী বাদি হয়ে শেরপুর থানায় মেছের আলীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে শেরপুর থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার মালিপাড়া এলাকা থেকে রাত সাড়ে ১২ টার দিকে ধর্ষক মেছের আলীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।
এ ব্যাপারে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর বলেন, ধর্ষন মামলা হওয়ার পর ওই রাতেই ধর্ষক মেছের আলীকে আটক করা হয় এবং জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।