বৃদ্ধাকে হত্যার পর চুরি করে পালানোর সময় যুবক আটক

বগুড়ায় এক বৃদ্ধাকে হত্যার পর চুরি করে পালানোর সময় জনগণের হাতে এক যুবক আটক হয়েছে। সোমবার (২৪ আগস্ট) বিকেলে বগুড়া শহরের মধ্য ধাওয়াপাড়ায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে। নিহত বৃদ্ধা শামসুন নাহার (৭০) মধ্য ধাওয়াপাড়ার (নারুলী) মৃত গোলাম মোস্তফার স্ত্রী।

আটক তাইরান নেওয়াজ (১৮) নামে ওই যুবক একই এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে।

জানা গেছে, নিহত বৃদ্ধার ছেলে সোহেল বগুড়ায় এসেনশিয়াল ড্রাগস কোম্পানিতে চাকরি করেন। সোমবার সকালে তার স্ত্রী সন্তানসহ বাবার বাড়িতে যান। সোহেল রানা তার মাকে বাড়িতে একা রেখে কর্মস্থলে যান। বিকেলে বাড়িতে ফিরে ঘরের প্রধান দরজা বন্ধ দেখে অনেক ডাকাডাকি করেন। কিন্তু কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে বাড়ির পেছনে গেলে দুই যুবককে পালিয়ে যেতে দেখেন। এ সময় সোহেলের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাইরান নেওয়াজকে আটক করে। তবে অপর যুবক পালিয়ে যায়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আটক যুবককে হেফাজতে নেয়। তখন আটক যুবক পুলিশকে জানায়- তারা প্রতিবেশী হওয়ায় খুব সহজেই বাড়িতে প্রবেশ করতে পারে এবং একটি ডাবের মধ্যে ২২টি ঘুমের ট্যাবলেট মিশিয়ে ওই বৃদ্ধাকে খাওয়ায়। ওই বৃদ্ধা অচেতন হয়ে পড়লে দুই যুবক গলা টিপে তাকে হত্যা করে। এরপর আলমারি থেকে ৩ হাজার টাকা, বৃদ্ধার স্বর্ণের কানের দুল, দুইটি মোবাইল ফোন নিয়ে পালানোর চেষ্টা করে।

বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা জানান, বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

 

সর্বশেষ সংবাদ