কুড়িগ্রামে কিশোরী ধর্ষনের মূল্য ১লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে দীর্ঘ ৫দিন নাটকীয়তার পর অবশেষে গত২৪শে আগষ্ট গ্রাম্য শালিশে কিশোরী ধর্ষণের মূল্য ১লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা নির্ধারন করেছে স্থানীয় মাতব্বরগণ। অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আখি আক্তারকে কমান্ড স্টাইলে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষন করে প্রেমিক মাইনুল ইসলাম মুন। বিয়ের কথা বলে তুলে নিয়ে গেলেও ৫দিন পার হওয়ার পরও বিয়ে না করে ধর্ষক পার পেয়ে গেল ১লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা দিয়ে। উল্লেখ্য যে স্থানীয় সুত্রে জানাগেছে, গত ২০ আগষ্ট সকাল আনুমানিক ১০ঘটিকার সময় বেরুবাড়ী আবাসন বাজার সংলগ্ন শহিদুলের মেয়ে আখি আক্তারকে বাড়ীর থেকে নিয়ে যায় পাশ্ববর্তী গ্রামের আব্দুল জলিলের পুত্র মাইনুল ইসলাম মুন। রিক্সাযোগে আখি আক্তারকে এক বাড়ীতে নিয়ে রাখে, সেখানে সারাদিন ঘরে আটকে রাখার পর বিকালে বেরুবাড়ীর চরাঞ্চলের এক বাড়ীতে নিয়ে রাত কাটায়। সেখানে রাত কাটানোর পর এলাকায় বিষয়টি নিয়ে জানাজানি হলে মাইনুল ইসলাম মুন পালিয়ে যায়। পরে মেয়ে নিরুপায় হয়ে প্রেমিক মাইনুলের বাড়ীতে অবস্থান নিলে স্থানীয় মাতব্বরগণ মিমাংসার কথা বলে মেয়েটিকে সেখান থেকে সরিয়ে নিয়ে বেরুবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য সৈয়দ আলীর বাড়ীতে রাখে। পরে এলাকার মাতব্বরগণ ধর্ষণের মূল্য নির্ধারণ করেন ১লক্ষ ৩৮ হাজার টাকা। সুত্রে জানিয়ে পুরো টাকা ধর্ষিতাকে না দিয়ে ভাগ বাটোয়ার চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ সংবাদ