১৯ ঘণ্টা ধ্বংসস্তুপে চাপা, বুকে জড়ানো ছোট্ট ছেলেকে বাঁচিয়ে মারা গেলেন মা

মহারাষ্ট্রের রায়গড়ে আস্ত বিল্ডিং হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়েছিল। আর সেখানেই সন্তানকে কোলে নিয়ে চাপা পড়েছিলেন ৩২ বছর বয়সী ইস্মত। নিজের চার বছরের ছেলের জীবন বাঁচালেও মারা যান তিনি।

বিল্ডিং ভেঙে যাওয়ার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের মধ্যে রয়েছে ইস্মতের নাম। তবে তার ছেলে মহম্মদ বাঙ্গিকে ১৯ ঘণ্টা পর উদ্ধারকারী দল জীবিত উদ্ধার করেছে।

উদ্ধারকারী দলের কর্মীরা জানিয়েছেন, বাঙ্গির শরীরে তেমন চোট নেই। বিল্ডিং যখন ভেঙে পড়ে তখন সিঁড়ির সামনে আটকে পড়েছিলেন মা ইস্মত ও ছেলে বাঙ্গি। তখনই ছেলেকে বুকে জড়িয়ে নেন ইস্মত।

দুই মেয়ে আয়েসা (৭) ও রোকেয়াকে (২) বাঁচাতে পারেননি ইস্মত। বাঙ্গির ঠাকুমাও এই ভয়াবহ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন। উদ্ধারকারী দলের কর্মীরা জানিয়েছেন, বাঙ্গি ১৯ ঘণ্টা ধ্বংসস্তুপের নিচে মায়ের মৃতদেহের তলায় চাপা পড়ে ছিল।