পত্নীতলায় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্মান্তরিত করে আদিবাসী কলেজছাত্রীর সাথে প্রতারণাকারী বাবু আটক

পত্নীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ পত্নীতলায় উপজেলায় এক আদিবাসী ছাত্রীকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্মান্তরিত করার পর প্রত্যাখান করায় অবশেষে আল-আমীন মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীম আল-রাজি বাবুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত বুধবার রাতে পত্নীতলা থানার সহযোগীতায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) উপজেলা সদর নজিপুর নতুন হাট এলাকায় তার নিজ বাসভবন থেকে তাকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

নওগাঁ বিজ্ঞ আদালতে রানী এক্কার দায়েরকৃত মামলা সুত্রে জানা গেছে, ধামইরহাট উপজেলার পশ্চিম চকভবানী গ্রামের সন্তোষ এক্কা’র মেয়ে উক্ত রানী এক্কা স্থানীয় একটি কলেজে ডিগ্রি পাসকোর্স-এর ৩য় বর্ষের নিয়মিত শিক্ষার্থী। সে পত্নীতলায় আল-আমিন মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির এক মহিলা কর্মচারীর সাথে একই ম্যাচ-এ বসবাস করতো। তার সাথে যাতায়াতের সুবাদে আল-আমীন মাল্টিপারপাস কো-অপারটিভ সোসাইটির পরিচালক মোঃ আলীম আল রাজী বাবুর সাথে পরিচয় ঘটে। প্রথমে অনৈতিক প্রস্তাব দিলে রানী তা প্রত্যাখান করে। পরে সুচতুর বাবু বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে তার সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে বিয়ে করবে বলে এফিডেফিট করে রানী এক্কাকে মুসলিম ধর্মে ধর্মান্তরিত করে তার নাম রাখা হয় মোসাঃ শারমিন। এরপর গত ২০১৯সালের ১৬জানুয়ারী থেকে রানী এক্কাকে উক্ত আলীম আল রাজি বাবু বিয়ে করার প্রলোভন দিয়ে মহাদেবপুর ও পত্নীতলা উপজেলার বিভিন্ন বাসায় ভাড়া করে রাখে এবং নিয়মিত যাতায়াত করতে থাকে। সবশেষে তাকে পত্নীতলা উপজেলা সদরে বাবুর নিজ বাসায় একাংশে রাখা হয়। প্রতি মাসে রানীর হাত খরচ বাবদ টাকা এবং নিয়মিত বাজার সদাই করে দিত। সেখানেও নিয়মিত যাতায়াত এবং স্বামী স্ত্রী পরিচয়ে বাস করতো। এক সময় বিয়ের জন্য চাপ দিলে আলীম আল রাজী বাবু তাকে বলে যে বাবা মারা গেলে বিয়ে করবে। কিন্তু বাবা মারা যাওয়ার পরেও বিয়ের কোন উদ্যোগ নেয় না।

এরই মধ্যে ২০২০সালের মার্চ মাসে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে কৌশলে তাকে বাড়ি থেকে চলে যেতে বলে। বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর থেকে বাবু তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ সহ মাসিক খরচ এবং বাজার দেয়াও বন্ধ করে দেয়। এমন কি রানী মাল্টিপারপাসে যে দুই লাখ টাকা রেখেছিল তারও কাগজপত্র লোপাট করে ফেরত দিতে অস্বীকার করে। এর ফলে রানী এক্কা ভীষন অসহায় হয়ে পড়ে। ধর্মান্তরিত হওয়ায় একদিকে যেমন বা-মার কাছে ফিরে যেতে পারছেনা অন্যদিকে বাবুও স্ত্রীর স্বীকৃতি না দেয়ায় খেয়ে না খেয়ে অসহায় অবস্থায় স্ত্রীর মর্যাদা চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে ধর্মান্তরিত আদিবাসী কলেজ ছাত্রী রানী এক্কা। রানী বার বার বাবুর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্ট করলে তাকে নানাভাবে হুমকী প্রদান করতে থাকে। এমন কি তাকে যারা সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসে তাদেরকেও হুমকী প্রদান করে। অবশেষে রানী এক্কা মোকাম নওগাঁ ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল নং-২ আদালতে মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ১৩১। তাং- ১৮/০৮/২০২০ইং।

এ বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে পেরে তথ্য সংগ্রহে গেলে বাবু তাদেরকেও হুমকী প্রদান করে।

এব্যাপারে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী উক্ত বাবুকে আটকের কথা নিশ্চিত করেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ