নন্দীগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যানকে হামলার ঘটনায় বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা

নাজমুল হুদা, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহকে হামলার ঘটনায় বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানা গেছে, ২৯ আগস্ট শনিবার দুপুর সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার কুন্দারহাট বাসস্ট্যান্ডে একটি চায়ের দোকানে চা খেয়ে লোকজনের সাথে কথা বলেছিল উপজেলা চেয়ারম্যান। সে সময় ভাটগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জুলফিকার আলী ফোক্কার তার লোকজন নিয়ে পরিকল্পিতভাবে চেয়ারম্যানের সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করে। কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে তারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল আশরাফ জিন্নাহকে হামলা করে। এ বিষয়ে নন্দীগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। হামলার প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন দলীয় কার্যালয় হতে বিকেল সাড়ে ৩ টায় একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি পৌর শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ডে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এবং উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র মহন্ত, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম শেখ, সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন চন্দ্র মহন্ত, ২নং নন্দীগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা সোহাগ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসলাম ফকির, উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি এম আর জামান রাসেল, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ আশরাফ মামুন, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বেনজির, সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার হোসেন সুমন, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি সফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সাঈদ রায়হান মানিক, উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি শাহজাহান আলী, যুবলীগ নেতা মোফাজ্জল বারী, শাহিনুর রহমান, লিটন, দিলিপ, ফারুক, রইচ উদ্দিন, আসকান আলী, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবু সাঈদ, সাবেক ছাত্র নেতা আব্দুর রাজ্জাক, ছাত্রলীগ নেতা শুভ আহম্মেদ ও সাইফুল ইসলাম দুলাল প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে দোষী ব্যাক্তিকে গ্রেফতারের দাবী জানায়।

সর্বশেষ সংবাদ