শেরপুর উপজেলা পরিষদের নিলাম ছাড়াই ৩ যুগের পরিত্যাক্ত গুদাম অপসারণ

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি: বগুড়ার শেরপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে প্রায় ৩ যুগ পূর্বে নির্মিত বর্তমানে ভগ্নদশায় পরিত্যাক্ত গুদামটি কোন প্রকার নিলাম ছাড়াই ভেঙ্গে অপসারন করছে উপজেলা প্রশাসন। ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ওই পরিত্যাক্ত গুদামঘর ভাঙ্গার কাজ করছে কয়েকজন শ্রমিক। তবে গুদাম বিল্ডিংটি ভাঙ্গতে কোন নিলাম বিজ্ঞপ্তি বা প্রচার প্রচারণা করা হয়নি বলে সচেতনমহলে অভিযোগ রয়েছে। ওই স্থানে অত্যাধুনিক মিলনায়তনের নতুন ভবনের কাজ জরুরীভিত্তিতে শুরু হবে তাই পরিত্যক্ত গুদামটি অপসারণ করা হচ্ছে বলে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছেন।
জানা যায়, তৎকালীন সরকার আশির দশকে বগুড়ার শেরপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে খাদ্য ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী রক্ষণাবেক্ষনের জন্য নির্মাণ করে গুদামটি। প্রায় দীর্ঘ ৩যুগ ধরে ওই গুদামটি অযত্ন অবহেলায় অকেজো হয়ে পরিত্যাক্তে গুদামে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে ওই গুদামটি জনস্বার্থে কোন কাজে না আসায় এবং উপজেলা পরিষদের জন্য অত্যাধুনিক মিলনায়তন নির্মাণে জন্য প্রকল্প বরাদ্দ হওয়ায় পরিত্যক্ত গুদামটি অপসারণ করা প্রয়োজন হয়ে পড়ে। তবে প্রায় ২ কোটি টাকা মুল্যে উপজেলা পরিষদের নবনির্মিতব্য মিলনায়তন ভবনের নির্মাণকাজে দরপত্র আহবান শেষ হয়েছে প্রায় ১ বছর আগে। দরপত্র মোতাবেক ওই নতুন ভবনের নির্মাণ কাজ অচিরেই শুরু করবে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। যার জন্য পরিত্যক্ত গুদামটি ভেঙ্গে অপসারন করা হচ্ছে এবং ইট-রড উপজেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রণে রাখা হচ্ছে। পরবর্তীতে নিলামের মাধ্যমে অপসারনকৃত মালামাল বিক্রয় করা হবে বলে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে শেরপুর উপজেলা প্রকৌশলী নুর মোহাম্মদ বলেন, পরিত্যক্ত গুদাম অপসারণে কোন নিলাম দেয়া হয়নি। তবে ওই ভাঙ্গা ও অপসারণকৃত গুদামের মালামাল উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেবের নিয়ন্ত্রনেই আপাতত থাকবে। পরবর্তীতে তার(উপজেলা চেয়ারম্যান) সিদ্ধান্তেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ওই পরিত্যক্ত গুদাম ভাঙ্গা ও অপসারনে নিলাম হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নে শেরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. লিয়াকত আলী সেখ জানান, নিলাম তো হবেই…! নিলাম ছাড়া কি ভাঙ্গা বা অপসারণ করা যায়? বলেই ফোন সংযোগ কেটে দেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান মজিবর রহমান মজনু বলেন, পরিত্যাক্ত গুদামের নিলামের জন্য উপজেলা পরিষদের সভায় রেজুলেশন হয়েছে। এছাড়া বিষয়টি অনুমোদনের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট অনুরোধ করা হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ