আমিও তো ভার্জিন নই: নেহা

গত বছরের ৫ জানুয়ারি বিয়ে করেছেন শার্দুল সিং বায়াস ও টেলিভিশন অভিনেত্রী নেহা পেন্ডসে। শার্দুল একজন ব্যবসায়ী। তাদের বিয়েতে উপস্থিত ছিলো শার্দুলের আগের পক্ষের দুই মেয়েও। নেহা বিয়েতে তাদের সঙ্গেও চুটিয়ে আনন্দ উপভোগ করেছেন। তবে নেহাকে এ নিয়ে নানা ট্রোলের মুখে পড়তে হয়েছে। অনেকেরই তার কাছে প্রশ্ন, স্বামীর আগের বিয়ে নিয়ে নেহা কী মনে করেন?

রিয়েলিটি শো বিগ বসের প্রাক্তন প্রতিযোগী নেতা বিয়ের পর টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, এটা এমন কি বড় ব্যাপার? আজকাল আমরা অনেকেই দেরিতে বিয়ে করি। ক্যারিয়ারে ফোকাস করা তার অন্যতম কারণ। অনেকেই বিয়ের আগে একাধিক সম্পর্কেও জড়ান। সেখানে কমিটমেন্ট, ভালোবাসা, শারীরিক ঘনিষ্ঠতা সবই থাকে, শুধু সামাজিক সম্পর্কের কোনও ছাপ থাকে না।

শার্দুল প্রসঙ্গে নেতা বলেন, শার্দুল ডিভোর্সি, তার আগের সংসারে দুই মেয়ে আছে। এটা নিয়ে লোকের এত মাথাব্যথার কারণ কী? আমিও তো ভার্জিন নই।

ওই সাক্ষাৎকারে ‘মে আই কাম ইন ম্যাডাম’ খ্যাত এই অভিনেত্রী আরো বলেন, আমি এটা খুব ভালো করে খেয়াল করেছি, শার্দুল যে মহিলাকে ভালোবেসেছে তার সঙ্গে ঘর বেঁধেছে। আমিও তো অনেক সম্পর্কে জড়িয়েছি। যখনই যে সম্পর্কটা বিয়ের দিকে এগিয়েছে তারা দায়িত্ব ঝেড়ে পালিয়েছে। কিন্তু শার্দুল কমিটমেন্টকে ভয় করেনি। বিয়ে নামক সামাজিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি শার্দুলের বিশ্বাসকে আমি স্যালুট জানাই।

নেহার কথায়, আমি নিজেও মনে করি যদি বিয়ের পর তোমার মনে হয় এ সম্পর্কটা আর এগিয়ে নেয়া সম্ভব নয়, তবে সেটাকে টেনে হিঁচড়ে এগোনোর কোনো মানে হয় না। শেষ করে দেয়াটাই ভালো।

এমনকি বিয়ের পর নাম পাল্টে নিজেকে নেহা পেন্ডসে বায়াস পরিচয় দিতেও কুণ্ঠা নয়, গর্ববোধ করেন বলেও জানান এ অভিনেত্রী।