অস্ত্রের মুখে মোহনপুরে প্রশাসনের নেপথ্যে চলছে কৃষি জমিতে পুকুর খননের হিড়িক

সারোয়ার হোসেন, রাজশাহীঃ রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার ধুরইল পূর্বপাড়া বিলের কৃষি জমিতে প্রকার্শে দিনে দুপুরে সাধারণ (অস্ত্র) হাঁসুয়া, দা, কুড়াল হাতে নিয়ে প্রশাসনের নেপথ্যে চলছে কৃষি জমির উপর অবৈধ পুকুর খননের হিড়িক। এতে করে অবৈধ পুকুর খননের ছবি তুলতে গেলে সাংবাদিকদের হত্যার হুমকি দিয়ে হাঁসুয়া,দা,কুড়াল হাতে তেড়ে আসছেন পুকুরে রাখা বখাটে কিশোর গ্যাংয়ের একদল সন্ত্রাসী। যার ফলে প্রাণের ভয়ে কেউ অবৈধ পুকুরের ছবি তো দূরের কথা কেউ পুকুরের আসপাশে পর্যন্ত যেতে পারছেন না। এমন চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি নিয়ে মোহনপুর উপজেলা প্রশাসন ইউএনও’র কাছে একাধিক সাংবাদিকরা ফোন করে অবৈধ পুকুরের বিষয়ে জানালেও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। যার জন্য প্রকার্শে দিনে দুপুরে চলছে কৃষি জমির উপর পুকুর খনন। চলতি মাসের(০৭জানুয়ারী) বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় এ অবৈধ পুকুর খননের হিড়িক। সেখানে স্থানীয় ভূমিদস্যু দালাল নামে পরিচিত আনোয়ার নামের একজন ব্যাক্তি হাতে হাঁসুয়া,দা,কুড়াল নিয়ে দাপটের সাথে বসে থেকে পুকুর খনন করাচ্ছেন। এসময় উপস্থিত সাংবাদিকদের দেখে আনোয়ার হোসেন বলেন, কেউ পুকুরের ছবি তুললে এখানে থেকে তাকে ফেরত পাঠানো হবেনা। আপনারা সাংবাদিক ক্ষমতা থাকলে এসপি ডিসিকে ফোন দিয়ে আমার পুকুর খনন বন্ধ করেন। আমি ডিসি ইউএনও’র অনুমতি নিয়ে পুকুর খনন করছি বলে তিনি দম্ভোক্তি প্রকাশ করেন। ধুরইল পূর্ব পাড়া গ্রামের স্থানীয়রা জানান, রাতারাতি রাজশাহী শহর থেকে মাস্তান এনে কিছু জমির মালিকের কাছে থেকে জমি টেন্ডার নিয়ে পাশাপাশি আরো কৃষকের জমি জোরপূর্বক দখল করে পুকুর খনন করতে শুরু করে। কৃষকেরা তাদের জমিতে পুকুর খনন বন্ধ করতে বললে উল্টো তাদের হুমকি দিয়ে বখাটে আনোয়ার তাদের হাতে কিছু টাকা ধরিয়ে দিয়ে জোর করে পুকুর খনন করছেন তাঁরা। যদি বিলের জমিতে এভাবে পুকুর খনন করা হয় তাহলে বন্যার পানিতে পুরো গ্রাম জলবদ্ধতায় ডুবে যাবে। তাই যেকোনো ভাবে এই অবৈধ পুকুর খনন বন্ধ করা প্রয়োজন বলে জানান স্থানীয়রা। অন্যদিকে দিনে দুপুরে অস্ত্র হাতে পুকুর খনন করা দেখে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম আতংক বিরাজ করছে। কৃষি জমির উপর পুকুর খননের বিষয়ে মোহনপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও সানোয়ার হোসেনের সাথে কথা বলা হলে তিনি বলেন, কৃষি জমির উপর পুকুর খননের কোন সুযোগ নেই। যদি কৃষি জমির উপর অবৈধ পুকুর খনন করা হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান। তবে জেলা প্রশাসকের কাছে জরুরী ভাবে অবৈধ পুকুর খনন বন্ধের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী ও সচেতন মহল।