বগুড়ায় শীতার্ত শ্রমিকদের পাশে মানবিক ব্যবসায়ী পরিমল প্রসাদ

স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়া তথা উত্তরাঞ্চলের পাইকারী বৃহৎ একটি বাজার শহরের ‘রাজাবাজার’ যেখানে দিন-রাত সমভাবে পণ্য লোড-আনলোড চলে যেখানে বিভিন্ন শিফটে কাজ করে নারী-পুরুষ মিলিয়ে শত শত দিনমজুর। দিনমজুরদের অধিকাংশ জেলার বিভিন্ন উপজেলা এবং অনেকে আবার জেলার বাইরে থেকেও আসে এই বাজারে শ্রম দিতে। শ্রমের ফাঁকেই শীতের রাতে যখন একটু বিশ্রামে যায় তারা তখন শীতের তীব্রতা অনুভব করে দরিদ্র খেঁটে খাওয়া এই মানুষগুলো। ছেড়া-ফাঁটা কাপড়ে কি আর রাতের হিমেল ঠান্ডা শীত যায়? এমতাবস্থায় প্রতিবছরের ন্যায় বগুড়া রাজাবাজারের এমন শতাধিক শ্রমজীবি নারী-পুরুষ শ্রমিকদের পাশে শীতবস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়েছেন মানবিক ব্যবসায়ী নেতা রাজাবাজার আড়ৎদার ও ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পরিমল প্রসাদ রাজ।
শনিবার সকালে ১ম ধাপে পরিমল প্রসাদের নিজ ব্যবসায়ী কার্যালয় হতেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তিনি রাজাবাজারের দিনমজুরদের মাঝে শীতবস্ত্রস্বরুপ ভাল মানের কম্বল বিতরণ করেছেন। বিতরণকালে তিনি বলেন, শ্রমিকদের ঘাম ও পরিশ্রমেই ব্যবসায়ীদের আয়-উন্নতি নির্ভর করে। ভিক্ষা না করে তারা শ্রম দিয়ে সৎ পথে রোজগার করছে যা গর্বের বিষয়। প্রতিবছর বাজারের শ্রমিকদের জন্যে তিনি শীতবস্ত্র বিতরণ করেন শনিবার ১ম পর্যায়ে বিতরণ করা হলেও এটি অব্যাহত থাকবে। বিতরণকালে এসময় ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম সাগরসহ ব্যবসায়ী সমিতির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, করোনাকালীন এই সময়ে অসহায়দের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত তিনি মানবিক সহযোগিতা প্রদান করে আসছেন। পাশাপাশি প্রতি বছর ব্যবসায়ী পরিমল শীতকালে কয়েকদফা বিভিন্ন এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ করে থাকেন যার মাঝে ইতিমধ্যেই শহরের স্টেশন এলাকায় থাকা ছিন্নমূল মানুষ, সাতমাথার আশেপাশে থাকা সুবিধাবঞ্চিত শিশু ও শীতার্ত ব্যক্তিদের মাঝে তিনি শীতবস্ত্র বিতরণ করেছেন। তার ঘনিষ্ঠজনদের অধিকাংশই বলেন, পরিমল প্রসাদের ব্যবসা থেকে প্রাপ্ত মুনাফার অধিকাংশই তিনি প্রকাশ্যে কিংবা গোপনে সাধারণ মানুষের কল্যাণে ব্যয় করে থাকেন যা চলে আসছে আজ দীর্ঘ বছর ধরে।