বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমেই স্বাধীনতার পূর্ণতা লাভ করে-মজিবর রহমান মজনু

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবর রহমান মজনু বলেছেন,১০ ই জানুয়ারি ১৯৭২ সালে ৯ মাস পাকিস্তানের কনডেম সেলে কারাভোগ করে সদ্য স্বাধীন দেশে প্রত্যাবর্তন করে স্বাধীনতার পরিপূর্ণ স্বাদ এনে দিয়েছিলেন।বাঙালি জাতির এই মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ছিলো মুক্তিকামী বাঙালির বহু প্রতীক্ষিত,আকাঙ্খিত,বহুদিনের লালিত স্বপ্ন এবং এক ঐতিহাসিক মাহেন্দ্রক্ষণ।লাখো লাখো বাঙালি সেদিন রেসকোর্স ময়দানে প্রিয় নেতাকে কাছে পেয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন।জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন বাঙালি জাতির অনুপ্রেরণা।বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ উন্নত বিশ্বের রোল মডেল।বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে বগুড়ার সকল স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর মনোনীত দলীয় প্রার্থিকে বিজয়ী করার জন্য সর্বস্তরের নেতাকর্মীকে আহহ্বান জানান।স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।গতকাল রবিবার সকাল ৮ টায় সাতমাথাস্থ দলীয় কার্যালয়ে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগ এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা টি জামান নিকেতা,এ্যাড: মকবুল হোসেন মুকুল,এ্যাড:আমানউল্লাহ আমান,প্রদীপ কুমার রায়,মিজানুর রহমান রতন, আসাদুর রহমান দুলু,সাগর কুমার রায়, শাহরিয়ার আরিফ ওপেল,এ্যাড:জাকির হোসেন নবাব, শাহাদাৎ আলম ঝুনু।জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক সুলতান মাহমুদ খান রনির পরিচালনায় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন তবিবর রহমান তবি,আল রাজি জুয়েল,শেরিন আনোয়ার জর্জিস,নাসরিন রহমান সীমা,মাশরাফি হিরো,আনোয়ার পারভেজ রুবন,রুহুল মোমিন তারিক,খালেকুজ্জামান রাজা,এম.এ বাসেদ,এ্যাড: নরেশ মুখার্জি,অধ্যক্ষ সহিদুল ইসলাম দুলু,অধ্যক্ষ সামসুল আলম জয়,ইমরান হোসেন রিবন,জাহাঙ্গীর আলম নান্নু আকন্দ,তৌহিদুল করিম কল্লোল,আ:রাজ্জাক,আব্দুল্লাহ আল ফারুক,আলমগীর হোসেন স্বপন,গৌতম কুমার দাস,খাদিজা খাতুন শেফালি,আব্দুস সালাম,আলমগীর বাদশা,শুভাশিষ পোদ্দার লিটন,মঞ্জুরুল হক মঞ্জু,জুলফিকার রহমান শান্ত,ডালিয়া নাসরিন রিক্তা,নাইমুর রাজ্জাক তিতাস,রাশেদুজ্জামান রাজন প্রমুখ