পতেঙ্গা থেকে সেন্টমার্টিন্সে যাবে প্রমোদ তরী বে-ওয়ান ক্রুজ

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থেকে প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিন্সের উদ্দেশে চালু হতে যাচ্ছে প্রমোদ তরী বে-ওয়ান ক্রুজ। মেরিটাইন ট্যুরিজম পর্যটন শিল্পকে জনপ্রিয় করতে এ জাহাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে ধারনা জাহাজ কর্তৃপক্ষের।

আগামী ১৪ জানুয়ারি রাত ১১টা থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে চলাচল শুরু করবে দুই হাজার যাত্রী ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন এ জাহাজটি।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) সকালে এ উপলক্ষে আযোজন করা হয়েছিল মিট দ্য প্রেসের। সেখানেই এ তথ্য জানানো হয়।

প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম টু সেন্টমার্টিন্স রুটে চালু হচ্ছে প্রমোদতরী বে-ওয়ান ক্রুজ। পতেঙ্গা ওয়াটার বাস ঘাট থেকে যাত্রীরা সরাসরি গিয়ে নামবেন সেন্টমার্টিন্সে। দুই হাজার যাত্রী ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন ৪৫০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৫৫ ফুট প্রস্থের এ জাহাজের ২৪ নটিক্যাল মাইল বেগে চলার সক্ষমতা রয়েছে। জাপানে তৈরি বিলাস বহুল এ জাহাজে ১৭ জন ক্রু ছাড়াও যাত্রী সেবায় নিয়োজিত থাকবেন আরো ১৫০ জন ক্রু জানান বে ওয়ান ক্রুজের ক্যাপ্টেন আলমগীর কবির।

মেরিটাইম ট্যুরিজমকে জনপ্রিয় করতে এ ক্রুজ জাহাজ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে জানান বে ওয়ান ক্রুজের সিইও ক্যাপ্টেন মাসুক।

দ্রুতগতির জাহাজ বে ওয়ান চালুর মাধ্যমে পর্যটকরা কম সময়ে এবং নিরাপদে সেন্টমার্টিন ভ্রমণের সুযোগ পাবেন। এতে পর্যটন শিল্পে নতুন মাত্রা যুক্ত হবে বলে মনে করেন কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এম এ রশিদ।

সপ্তাহে তিন দিন রাত ১১টায় এ ক্রুজ জাহাজ পতেঙ্গা ওয়াটার বাস টার্মিনাল ছেড়ে যাবে।

কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকদের জন্য অত্যাধুনিক ক্রুজ শিপ এনেছে চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠান কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স। রোববার -২০ ডিসেম্বর পর্যটক পরিবহনে যুক্ত হয় আধুনিক এ জাহাজটি। চট্টগ্রামের পতেঙ্গা ওয়াটার বাস টার্মিনাল থেকে যাত্রা শুরু করে এমভি বে-ওয়ান।