মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা প্রতিবাদে বগুড়ার শেরপুরে মানববন্ধন

রায়হান কবির রবিনঃ ক্রাইম রিপোর্টারঃ উত্তরবঙ্গ নিউজ ডটকমঃ ১৯৭১ সালের স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি আজও জেগে আছে, দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর নির্বিঘ্নে চালাচ্ছে সন্ত্রাসী হামলা। বাংলার বুকে এখনো জেগে আছে লাখো রাজাকার। বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার সীমাবাড়ী ইউনিয়নের সিংহের সিমলা নামক এলাকায় দুর্বৃত্তরা এ হামলা চালায়। স্বাধীনতা বিরোধী সশস্ত্র এ হামলাকারীদের আক্রমনে মুক্তিযুদ্ধ স্ব-পাক্ষিক আওয়ামী পরিবারের সন্তান আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী দানবীর খ্যাত মোঃ সাইফুল ইসলাম খান ও তার ফুপাতো ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুস সাত্তার আহত হন। হামলার প্রতিবাদে ১৩ই জানুয়ারি বুধবার দুপুর ১২টায় বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের বগুড়া বাজারে এ মানব বন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। বিশাল এ মানব বন্ধনে সীমাবাড়ী ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ অংশ গ্রহণ করেন। মানব বন্ধনে বক্তারা হামলায় জরিত থাকা ব্যাক্তিদের অতি দ্রুত গ্রেফতার করে কঠিন শাস্তির দাবি জানান। মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন, হামলায় আহত সীমাবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সাইফুল ইসলামের জামাতা সীমাবাড়ী ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোঃ সজল আহম্মেদ মন্ডল, হামলার স্বীকার হওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আব্দুস সাত্তার, সিমলা গ্রাম আওয়ামী লীগের সভাপতি শ্রী বিমল চন্দ্র পাল সহ ইউনিয়নের সিনিয়র ব্যাক্তিবর্গ। মানব বন্ধনে অত্র ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষ বিশাল মানব প্রাচীর তৈরী করে এবং দোষীদের অতি দ্রুত গ্রেফতার করে কঠিন শাস্তির দাবি জানান। এর আগে হামলায় আহত ব্যাক্তিদয় ও তাদের পরিবারের কাছে খোঁজ নিয়ে জানা যায় গত ১০ই জানুয়ারি ২১ইং রবিবার আনুমানিক বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সাইফুল ইসলাম কর্মব্যস্ততার ফাকে প্রতিদিনের ন্যায় সিংহের সিমলা বাজারে সকলের সাথে কুশল বিনিময়ের জন্য যান, সাথে ছিলো তার ফুপাতো ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার, হামলাকারীরা ৩০-৩৫ জন পূর্বের পরিকল্পনা মাফিক আধুনিক ভারি অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে রামদা, ষ্টীলের পাইপ,চাপাতি ও আগ্নেঅস্ত্র দিয়ে সাইফুল ইসলাম ও তার ফুপাতো ভাই আব্দুস সাত্তার এর উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং এলোপাতাড়ি মারতে শুরু করে এতে সাইফুল ইসলাম ও তার ফুপাতো ভাই আব্দুস সাত্তার গুরুতর আহত হন। আব্দুস সাত্তার সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরলেও সাইফুল ইসলাম এখনো বগুড়ার শজিমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহত সাইফুল ইসলাম ও আব্দুস সাত্তার জানান, সিংহের সিমলা গ্রামের জয়নাল আবেদীন জনু রাজাকার, জনুর ছেলে আব্দুর রাজ্জাক(৪৭), দুইটি মার্ডার মামলার জামিনে থাকা আসামী আকতার, একই এলাকার আব্দুস ছালাম (৫৫) এই হামলার মূল হোতা।

সর্বশেষ সংবাদ