পতনের বাজারে বীমার দাপট

সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার (২৪ জানুয়ারি) দেশের শেয়ারবাজারে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। এতে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান সূচকের পতন হয়েছে। এই পতনের বাজারে দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে বীমা খাত।

এদিন লেনদেনের শুরু থেকেই একের পর এক বীমা কোম্পানির শেয়ার দাম বাড়তে থাকে। লেনদেনের শেষ পর্যন্ত বীমা কোম্পানিগুলোর দাম বাড়ার দাপট অব্যাহত থাকে। এতে দিনের লেনদেন শেষে তালিকাভুক্ত ৪৯টি বীমা কোম্পানির মধ্যে ৩৭টির দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৮টির।

বীমা খাতের কোম্পানিগুলো দাম বাড়ার ক্ষেত্রে এমন দাপট দেখালেও অন্য খাতের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতন হয়েছে। দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইতে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে ৭৯টি প্রতিষ্ঠান। বিপরীতে দাম কমেছে ২০২টির। আর ৭৮টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এতে দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক আগের দিনের তুলনায় ২০ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৮১৫ পয়েন্টে নেমে গেছে। তবে বেড়েছে অপর দুই সূচক। এর মধ্যে ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ১ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২১০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসইর শরিয়াহ্ সূচক ২ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ২৯৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

প্রধান মূল্য সূচক কমলেও ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ বেড়েছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৪৫৮ কোটি ৬২ লাখ টাকা। যা আগের দিন ছিল ১ হাজার ২১৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে ২৪৫ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে বেক্সিমকো ফার্মার শেয়ার। কোম্পানিটির ২৫৯ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেক্সিমকোর ১৭৪ কোটি ১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১২৭ কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্স।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে ডিএসইতে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- রবি, সামিট পাওয়ার, সিটি ব্যাংক, পারাকা পাওয়ার, জিবিবি পাওয়ার, লাফার্জহোলসিম এবং স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যাল।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএএসপিআই কমেছে ৩৪ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৫৬ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেয়া ২৫৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৬৮টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৪৬টির এবং ৩৯টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।