বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই গ্রুপের হাতাহাতিতে দুইজন আহত

স্টাফ রিপোর্টারঃ বগুড়ায় আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন দুজন। স্বেচ্ছাসেবক লীগের দুই গ্রুপের একই সময়ে ডাকা পাল্টাপাল্টি প্রস্তুতি সভাকে কেন্দ্র করে বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আগামী ১৩ মার্চ বগুড়া শেরপুরে‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ প্রকল্পটি পরিদর্শনে আসবেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি। ওই দিনের কর্মসূচি নিয়ে এ প্রস্তুতি সভা ডাকা হয়েছিল। দুই গ্রুপই বেলা ১২ টার দিকে পৃথকভাবে সভা ডেকেছিল। সংঘর্ষে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মশিউর রহমান মন্টি গ্রুপের দুজন আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন মন্টি। মন্টি শহরের উত্তর অংশের স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্ব দেন। তিনি বলেল, ‘আমরা দলীয় কার্যালয়ে প্রস্তুতি সভা করছিলাম। সভা চলাকালীন বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে দলীয় কার্যালয়ে নাছিম তার লোকজন নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় আমার কর্মীদের মারধর শুরু করে তারা। পরে আমাদের প্রস্তুতি সভার ব্যানার খুলে ফেলে চলে যায় তারা। জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি ভিপি সাজেদুর রহমান শাহীন দলীয় কার্যালয়ে উপস্থিত থাকাকালীন এ ঘটনা ঘটে। মন্টি বলেন, ‘নাছিম গ্রুপের লোকজনের মারধরে আমার দুই কর্মী গুরুতর আহত হয়ে বগুড়ার মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।’ এ বিষয়েস্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নাছিমুল বারী নাছিম বলেন,‘দুপুরে দিকে আমাদের প্রস্তুতি সভা ছিল। আমরা দলীয় কার্যারয়ে গিয়ে দেখি সভার জায়গা দখল করে রেখেছেন মন্টির লোকজন। তারা আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমরা তাদের মারধর করিনি। তবে ধাক্কাধাক্কিতে দুই-একজন সামান্য আহত হতে পারে। এরকম আহত আমাদের কর্মীও হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘শহরের স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোনো উত্তর অংশ নেই। এগুলো সবই কথিত। আমরাইশহর স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্ব দিয়ে আসছি।’ এ বিষয়ে কথা বলতে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ভিপি সাজেদুর রহমান শাহীনেরসঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। জানতে চাইলে সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবীর বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো পক্ষ অভিযোগ করেনি। তবে অভিযোগের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সর্বশেষ সংবাদ