যুক্তরাষ্ট্রে একের পর এক বন্দুক হামলা, নিহত ১৫

যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুক হামলার ঘটনা ছড়াচ্ছে মহামারির মতো। প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে গুলির ঘটনা। ঝরছে প্রাণ। বাদ যায়নি মা দিবসের আয়োজনও। এবার লস অ্যাঞ্জেলেসের হলিউডে মাদার্স ডে’র এক অনুষ্ঠানে বন্দুক হামলার ঘটনায় নিহত হয়েছেন একজন। আহত অন্তত তিনজন। এছাড়া গেল এক সপ্তাহে দেশটিতে নয়টি গুলির ঘটনায় প্রাণ গেছে ১৫ জনের, আহত ৩০।

স্থানীয় সময় রোববার রাত ১০টা বেজে ১৫ মিনিট। হলিউডের ৬২০০ ব্লকের অ্যাফটন প্লেসে চলছে মা দিবসের অনুষ্ঠান। হঠাৎ দুই ব্যক্তি সেখানে প্রবেশ করে গুলিবর্ষণ শুরু করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান একজন, গুলিবিদ্ধ হন আরও তিনজন। আহত তিনজনকে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ জানায়, তারা সবাই একই পরিবারের সদস্য।

লস অ্যাঞ্জেলেসের পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তা লেফট্যানেন্ট জন রাডকে জানান, মা দিবসের আয়োজনে গুলি চালানো একটি জঘন্যতম কাজ।

জানা গেছে, সেখানকার সানসেট ফ্লাওয়ার স্টুডিওতে ৩০ থেকে ৪০ জন উপস্থিত ছিলেন। হামলাকারীরা গুলি চালালে উপস্থিত অতিথিদের একজন পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় দৌড়ে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এখন পর্যন্ত হামলার কারণ জানা যায়নি। এটি কোনো সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীর কর্মকাণ্ড কিনা তা নিয়ে পুলিশি তদন্ত চলছে।

এদিকে দেশটিতে আশঙ্কাজনকভাবে বন্দুক হামলার ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় নাগরিকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তাই নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এই মুহূর্তে বাইডেন প্রশাসনের সামনে বন্দুক হামলা নিয়ন্ত্রণ একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

সিএনএন-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গেল এক সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্থানে নয়টি বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রাণ গেছে ১৫ জনের, আহত কমপক্ষে ৩০ জন। যার মধ্যে কলোরাডো অঙ্গরাজ্যে একটি জন্মদিনের অনুষ্ঠানে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়ে ছয়জনকে হত্যার ঘটনা সব থেকে ভয়াবহ।