বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন

বগুড়া জেলাধীন উত্তরবঙ্গের নন্দীগ্রাম উপজেলার ২নং ইউনিয়নের বৃহত্তর রণবাঘা হাট-বাজার ইজারায় সরকারকে প্রায় ৩৩ লাখ টাকায় রাজস্ব বঞ্চিত করা হয়েছে। এ বিষয় নিয়ে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য পাঠ করেন নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক স্বপন চন্দ্র মহন্ত।রণবাঘা হাট-বাজার থেকে প্রত্যেক বছর কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়। গত ৩ ফেব্রুয়ারি বাংলা ১৪২৮ সনের ইজারার জন্য পত্রিকায় দরপত্র আহবান করা হয়। সরকারি মূল্য নির্ধারণ করা হয় এক কোটি ১৫ লাখ ৬৯ হাজার ২৬৫ টাকা। সিডিউল বিক্রয় শেষ তারিখ ছিল গত ২৮ এপ্রিল। পঞ্চম ধাপে দরপত্র গ্রহণের শেষ দিন ছিল। গত ২৯ এপ্রিল মেসার্স রাহী এন্টারপ্রাইজ ৮৩ লাখ ৪০ হাজার টাকার দরপত্র দাখিল করে। যা সরকারি মূল্যের চেয়ে ৩২ লাখ ২৯ হাজার ২৬৫ টাকা কম। ইতিপূর্বেও অনিয়মের মাধ্যমে মেসার্স রাহী এন্টারপ্রাইজকে কমমূল্যে ইজারা দিলেও সেটি বাতিল হয়েছিল। যা উপজেলাবাসী জানেন। এর আগে গত ১৪২৭ সনে রণবাঘা হাট ইজারা দেওয়া হয় এক কোটি ৩৩ লক্ষ ২৭ হাজার টাকায়। সোয়া কোটি টাকার হাট-বাজার ৮৩ লাখ টাকায় ইজারার মাধ্যমে সরকারকে ৩৩ লক্ষ টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে। এমনকি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে না জানিয়ে এবং চেয়ারম্যানের অনুমোদন চুক্তি নামা ছাড়াই রণবাঘা হাট-বাজার ইজারা দেওয়া হয়েছে। উপজেলা চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি হিসেবে ভাইস চেয়ারম্যানেও হাট-বাজার কমিটির সদস্য। তাকেও ইজারার বিষয়টি জানানো হয়নি। প্রিয় সাংবাদিক ভাইয়েরা আপনারা জেনে থাকবেন যে, সেমার্স রাহী এন্টারপ্রাইজ প্রতিষ্ঠানটি কালো তালিকা ভূক্ত একটি প্রতিষ্ঠান। মেসার্স রাহী এন্টারপ্রাইজ প্রতিষ্ঠানটির মালিক একেএম রেজাউল করিম তানসেন। কিন্তু ইজারা গ্রহীতা রাহী এন্টারপ্রাইজের প্রোপাইটারের জায়গায় আব্দুল করিমের নাম ব্যবহার করা হয়েছে। ইতি পূর্বে রণবাঘা হাট-বাজারটি ইজারা গ্রহণ করে রাহী এন্টারপ্রাইজটি কালো তালিকা ভূক্ত হওয়ায় এবং একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সিএ সাহেব ওএসডি হয়।কমমূল্যে ইজারার প্রতিবাদে ও ইজারা বাতিলের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার ২০/০৫/২০২১ইং তারিখ দুপুরে নন্দীগ্রাম উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ সংগঠনের যৌথ উদ্যোগে বিক্ষোভ করা হয়। এতে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ অংশ নেন।রণবাঘা হাট-বাজার ইজারায় ব্যাপক অনিয়ম ও সরকারকে রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ করার অনুরোধ করছি। সেই সাথে স্থানীয় সরকারের মন্ত্রী রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার এবং বগুড়া জেলা প্রশাসক মহোদয়ের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছি। যদি এই হাটেরা অবৈধ ইজারা বাতিল না করা হয় তাহলে আগামী সোমবার মানব বন্ধন এবং মঙ্গলবার ইউএনও কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করা হবে। এতেও অবৈধ ইজারা বাতিল না করা হলে পরবর্তীতে বৃহত্তর কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে।