বগুড়ায় ফুলগাছ খাওয়ায় ছাগল আটক ও জরিমানার ঘটনা ১০ দিন পর মীমাংসা

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা পরিষদ চত্বরে পার্কের বাগানে ফুলগাছ খাওয়ার অপরাধে এক ছাগল আটক ও মালিকের দুই হাজার টাকা জরিমানা ঘটনার ১০ দিন পর অবশেষে ছাগলের মালিক আদালতে ভুল স্বীকার করায় মিমাংসা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম রাজু খান ও উপজেলা নির্বাহি অফিসার সীমা শারমিন তাৎক্ষনিক জরিমানার টাকা পরিশোধ করে মালিক সাহারা বেগমকে ডেকে তার ছাগল ফেরত দিয়ে বিষয়টি নিম্পত্তি করেন। জানা গেছে, আদমদীঘি উপজেলার ডাকবাংলো সংলগ্ন এলাকায় বসবাস করেন ছাগলের মালিক সাহারা বেগম। তার স্বামীর নাম জিল্লুর রহমান। গত ১৭ মে তার একটি ছাগল উপজেলা পরিষদ চত্বরে পার্কের বাগানে ফুলগাছ খেলে ছাগলটি আটক করা হয়। উপজেলা নির্বাহি অফিসার সীমা শারমিন ফুলগাছ খাওয়ার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ওই ছাগলের মালিককে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন। জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে না পারায় ছাগলটি জনৈক কাজল নামের এক ব্যক্তির হেফাজতে রাখেন।উপজেলা নির্বাহি অফিসার সীমা শারমিন জানান, উপজেলা চত্বরে একটি পার্ক করা হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন জায়গা থেকে ফুলের গাছ নিয়ে এসে লাগানো হয়েছে। সাহারা নামের মহিলার ছাগল পার্কে লাগানো ফুলগাছ খেয়ে ফেলেছে কয়েক বার। এ বিষয়ে ছাগলের মালিককে বার বার সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু তিনি কথা শোনেন নি। এ কারণে ছাগল আটক করে ১৮৬০ সালের গণ উপদ্রপ আইনে ২৯১ ধারায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছাগলের মালিকের দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলা চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম খান রাজু মধ্যস্থতায় ও সংশোধনীর নিমিত্তে জরিমানার টাকা পরিশোধ করায় মালিককে ছাগল ফেরত দেয়া হয়েছে।ছাগলের মালিক সাহারা বেগম সাংবাদিকদের জানান, ছাগল ফেরত পেয়েছি কোন অভিযোগ নেই।