ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে বগুড়ায় মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার শিবগঞ্জে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া (১৩) এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া ওই শিক্ষকের নাম মাওলানা আব্দুর রহমান মিন্টু (৩২)। তিনি বিহার ইউনিয়নের পার লক্ষীপুর চাঁনপাড়া গ্রামের সোলাইমান আলীর পুত্র ও বানাইল কলেজ পাড়া মহল্লার হযরত ফাতেমা (রা:) হাফেজিয়া মহিলা মাদ্রাসার শিক্ষক।মঙ্গলবার ধর্ষণের স্বীকার ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে মাওলানা আবদুর রহমান মিন্টুকে আসামি করে থানায় মামলা করেন ।পরে ওই রাতেই শিবগঞ্জ থানা পুলিশ তাকে পৌর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে।গতকাল বুধবার ধর্ষিত মাদ্রাসা ছাত্রীকে পুলিশ স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) এ পাঠিয়েছে।শিবগঞ্জ থানা পুলিশ সূত্র জানায়, মহিলা হাফেজিয়া মাদ্রাসাটিতে ধর্ষণের স্বীকার ওই ছাত্রী সহ ১২ জন ছাত্রী আবাসিক ভাবে হলরুমে থাকতো। ওই হল রুমের পাশে নিজ পরিবারে নিয়ে থাকতেন অভিযুক্ত মিন্টু।গত মাসের রোববার ত্রিশ তারিখে ছাত্রীরা সবায় ঘুমিয়ে পড়লে রাত প্রায় আড়াইটার মিন্টু হল রুমে প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে এবং বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেয়। পরদিন ধর্ষণের স্বীকার ওই ছাত্রী মুঠোফোনে তার পরিবারকে জানালে তারা এসে ছাত্রীকে বাড়িতে নিয়ে যায়।শিবগঞ্জ থানার (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, আমরা মেয়েটিকে আমাদের হেফাজতে নিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছি। ইতিমধ্যে অভিযুক্তকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে।অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিন্টুর রিমান্ড চাওয়া হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ওসি জানান, পরিস্থিতি বিবেচনায় আইনি পদক্ষেপ নিতে প্রয়োজনে রিমান্ড নেওয়া হবে।