বগুড়ায় ফোর আর আধুনিক হাসপাতালে সুধি সমাবেশ

উত্তরবঙ্গ নিউজ ডটকম=সুস্থতা বিধাতার সবচেয়ে বড় নিয়ামত। সুস্থ জাতি গঠনে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে তাঁর আন্তরিকতা ও চেষ্টা ছিল অনেক। কিন্তু স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে তাঁর অসমাপ্ত কাজগুলো বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবার উপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্বারোপ করে সফলতার লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছেন। বিশেষ করে কমিউনিটি ক্লিনিক হতে শুরু করে ইউনিয়ন, থানা, জেলা বিভাগীয় পর্যায়ে উন্নতমানের হাসপাতাল স্থাপন করে আধুনিকমানের চিকিৎসা সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। এ দেশের বৃহৎ জনগোষ্ঠীর দিক বিবেচনা করলে সরকারের পাশাপাশি আধুনিক বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা হাসপাতাল এখন সময় উপযোগী। মানবসেবার চেয়ে বড় ধর্ম আর নেই, মানুষের সেবার জন্য এ ধরনের প্রতিষ্ঠান বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে। ভালো সেবা ও ভালো আচরনের মধ্য দিয়ে মানুষের হৃদয়ে স্থান করা সম্ভব। সেবার মান আরো একধাপ এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়ে গতকাল শুক্রবার বিকেলে বগুড়ার গন্ডগ্রামে ফোর আর আধুনিক হাসপাতালে সুধি সমাবেশে বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান একেএম আসাদুর রহমান দুলু এ কথাগুলো বলেন।
বগুড়া পৌরসভার ১৩নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আল মামুন আকন্দ এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নন্দীগ্রাম উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আলমগীর হোসেন স্বপন, রুপালী ব্যাংক লিমিটেড ডিজিএম শ্রী প্রকাশ কুমার সাহা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক এজিএস মোফাজ্জল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আরিফুল আলম শাওন, এ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিন লিটন, সাইফুল ইসলাম টিপু, শিক্ষাবিদ এইচএম সফিকুর তারিক, অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।
যমুনা লাইফ ইন্সুরেন্স কোম্পানীর সিনিয়র এ্যাসিসট্যান্ট ম্যানেজিং ডিরেক্টর মুশফিকুর রহমান কাজলের সাবলীল উপস্থাপনায় আধুনিক হাসপাতাল সম্পর্কে ধারনা দেন প্রতিষ্ঠানের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো. রেজাউল করিম।
নিজের অধিকার জানুন, স্বাস্থ্যসেবা গ্রহন করুন। সেবা কেন্দ্রে যে সব অধিকার পাওয়া যায় সে সম্পর্কে তথ্য পাওয়ার অধিকার, নিরাপদ ও ধারাবাহিক সেবা পাওয়ার অধিকার, চিকিৎসা ও পরিকল্পনা পদ্ধতি পছন্দ করার অধিকার, গোপনীয়তার অধিকার, প্রাপ্ত সেবা সম্পর্কে বিস্তারিত জানার অধিকার, মর্যদা লাভ, মতামত দানের ও আন্তরিক পরিবেশ পাওয়ার অধিকারসহ নানা সুপারিশ সমূহ উক্ত সুধি সমাবেশে স্থান পায়।
অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত ও অতিথিদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।