বগুড়ায় জিয়াউর রহমানের রোপন করা চারার বৃক্ষের পূর্ণতা দিয়ে এক বৃক্ষ প্রেমিকের কথা

স্টাফ রিপোর্টার:১৯৮১ সালের মার্চ মাসে বগুড়া সার্কিট হাউস থেকে ৮ কিলোমিটার রাস্তা পায়ে হেঁটে সদরের হাজড়াদিঘী স্কুল মাঠের সম্মেলন স্থলে যাবার পথে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান পলি কুকরুল গ্রামের রাস্তার পার্শ্বে একটি বটের চারা রোপন করেন।গত চল্লিশ বছরে নানা প্রতিকূলতা ও বৈরী পরিস্থিতি সামাল দিয়ে পলি কুকরুল গ্রামের গরীব বৃক্ষ প্রেমিক ছবেদ আলী কোন বিনিময় ছাড়া বগুড়ায় শহীদ জিয়ার এই স্মৃতি ধরে রেখেছেন। বট বৃক্ষের পরিচয়ে এই জায়গার নাম হয়েছে ‘জিয়া বটতলা’।একটি চারা পরিচর্যা করে বৃক্ষের পূর্ণতা দিয়ে ছবেদ আলী আজ নিজেই দূরারোগ্য প্যারালাইসিসে অচল। গরীব বৃক্ষ প্রেমিক ছবেদ আলীর চলা ফেরার জন্য জিয়া ভক্ত বিশিষ্ট সমাজ সেবক মাহবুবর রহমান তাকে উপহার দিলেন একটি হুইল চেয়ার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাভিশন বগুড়া ব্যুরো চিফ আব্দুর রহিম বগরা, জেলা মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক আলহাজ্ব ময়নূল হক বকুল প্রমুখ।বগুড়া নামুজা সড়কে পলি কুকরুল গ্রামে জিয়া বটতলায় ১৯৮১এর মার্চ মাসে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান রোপিত বট বৃক্ষের ৪০ বছর ধরে পরিচর্যাকারি প্যারালাইসিসে অচল ছবেদ আলী মন্ডলকে গতকাল একটি হুইল চেয়ার উপহার দেন জিয়া ভক্ত বিশিষ্ট সমাজ সেবক মাহবুবর রহমান ছোটন।