ভুয়া জামিন করিয়ে ফাঁসলেন দুই আইনজীবী

মোঃ ফজলুল হক রোমান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ ভুয়া জামিন করিয়ে ফাঁসলেন দুই আইনজীবী, ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট ভুয়া জামিন করিয়ে এবার ফেঁসে গেছেন দুজন আইনজীবী। গত ফেব্রুয়ারিতে বগুড়ায় শ্রমিক নেতাদের সংঘর্ষে ৩০ জনের জামিন করিয়ে ফেঁসে যান তারা। সিআইডি বলছে, আদৌ কোনো জামিন শুনানিই হয়নি। শুধু দুই আইনজীবী নয়, ফেঁসেছেন আরও দুজন। আর পুরো ঘটনায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট ওই দুই আইনজীবীকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন। এ দৃশ্য গেলো ৯ ফেব্রুয়ারি বগুড়ার। মোটর মালিক গ্রুপের নিয়ন্ত্রণে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে জেলা আওয়ামী লীগের দু’পক্ষ। এ ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয় তিনটি। মামলা দায়েরের পর উচ্চ আদালতের দুজন বিচারকের নাম ব্যবহার করে ৩০ জনের ভুয়া জামিন নামা জমা হয় বগুড়া সদর থানায়। যা ফাঁস হয় ২৪ ফেব্রুয়ারি। এরপরই কঠোর হয় উচ্চ আদালত। আত্মসমর্পণের পর কারাগারে যান ওই আসামীরা। পুরো ঘটনা তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় সিআইডিকে। সেই তদন্ত রিপোর্ট বুধবার জমা দেয়া হয় বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকী বেঞ্চে। যেখানে পুরো ঘটনায় জালিয়াতির জন্য ৪ জনের নাম উঠে এসেছে। এর মধ্যে আইনজীবী দুজন। এদের একজন ঢাকা কোর্টের আইনজীবী রাজু আহমেদ রাজীব ও বগুড়া আদালতের আইনজীবী তানজীম আলম ইসলাম। এছাড়া দায় পাওয়া গেছে কম্পিউটার অপারেটর মাসুদ রানা ও আইনজীবী সহকারি মো. সোহাগের। কারাগারে থাকা সোহাগ এরই মধ্যে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। পলাতক দুই আইনজীবীসহ ৩ জনকে দু সপ্তাহের মধ্যে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। ২৩ জুন হাইকোর্ট মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে হাজির হতে বলা হয়েছে। পলাতক দুই আইনজীবীর ফোনই বন্ধ রয়েছে।