থানা হাজতে আসামির ঝুলন্ত মরদেহ

ঢাকার উত্তরা পূর্ব থানার হাজতখানায় মাদক মামলার এক আসামির ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া গেছে। মাদক মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মো. লিটন (৪৫) নামে ওই ব্যক্তিকে দুদিন আগে থানা হাজতে আনা হয়েছিল। তবে পুলিশের দাবি, ওই ব্যক্তি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) ভোররাতে হাজতখানায় লিটনের ঝুলন্ত মরদেহ পাওয়া যায় বলে জানিয়েছে উত্তরা পূর্ব থানার পরিদর্শক (অপারেশন্স) মো. মোখলেসুর রহমান।

তিনি বলেন, ভোররাতে হাজতের ভেতরে ভেন্টিলেটরে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। কম্বল ছিঁড়ে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের আড়ালে গিয়ে সে গলায় ফাঁস দেয় বলে ধারণা করছে পুলিশ।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ডিএমপির উত্তরা বিভাগের উপকমিশনার সাইফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।

সম্প্রতি তার কাছে ৫ হাজারেরও বেশি ইয়াবা পাওয়া যায়। লিটনের বিরুদ্ধে মাদকের চারটি মাদক মামলা রয়েছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা।

মাদকের মামলায় তাকে দু’দিনের রিমান্ডে আনা হয়েছিল। মঙ্গলবারই তার রিমান্ড শেষ হওয়ার কথা।