তানোরে আদিবাসীদের কবরস্থান গাছ লাগিয়ে দখল

সারোয়ার হোসেন,তানোর প্রতিনিধি: রাজশাহীর তানোরে এক আদিবাসী সম্প্রদয়ের কবরস্থান গাছ রোপণ করে দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার মুন্ডুমালা পৌর এলাকার জগদিসপুরগ্রামে ভুত কুড়ি নামক কবরস্থান দখলের ঘটনা ঘটেছে। কবরস্থান রক্ষার জন্য ওই পল্লীর ১৫জন ব্যক্তি সাক্ষরিত লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন নির্বাহী অফিসার বরাবর। এঘটনায় পল্লীর জনগোষ্ঠী ও দখলদার ওই গ্রামের রজব আলীর পরিবারের মাঝে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা। অভিযোগে উল্লেখ, মুণ্ডুমালা পৌর এলাকার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে অবস্থিত জগদিসপুর মৌজার ১৭৫ দাগে ভুত কুড়ি নামক স্থানে দীর্ঘদিন ধরে জগদিসপুর গ্রামে ৬০ টির মত আদিবাসী পল্লীর জনসাধারণ ও পরিবার কবরস্থান হিসেবে ব্যবহার করছে।এঅবস্থায় সম্প্রতি ওই গ্রামের বাসিন্দা বিএনপি নেতা রজব আলী কবরস্থান দখল নিতে গাছ রোপণ করেছেন। আরো বলা হয়েছে তিনি একজন বিএনপির নেতা। সরেজমিনে দেখা যায়, জগদিসপুরগ্রামের দক্ষিনে অবস্থিত কবরস্থানটি। জায়গাটির নাম ভুতকুড়ি বলে জানা যায়। অনেক কবরও দেখা যায়। সেখানে নতুন ভাবে গাছ রোপণ করা হয়েছে। দু একজন করতে করতে কবরস্থানে পল্লীর প্রায় মহিলা পুরুষরা উপস্থিত হওয়া শুরু করেন, আর বলতে থাকেন আমাদের বাপ মা ছেলে সন্তান দের কবরের উপরে কেন গাছ লাগানো হল। এখন কেউ মারা গেলে কোথায় মাটি দিব বলে হাওমাও করে উঠেন।তাদের মাঝে বিধবা ৬০ বছরের বৃদ্ধা মনিকা মারডি, জারমান মুরমুর স্ত্রী আগসচিন হেমরম, পাউলুস, দরদি হেমরম সহ অনেকেই মলিন মুখে বলেন স্বাধীনতার আগে থেকে এই জায়গা কবরস্থান হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে। এখানে বাপ দাদার কবর রয়েছে। যে ভাবে গাছ লাগিয়েছে রজব এখন কেউ মারা গেলে কবর দেওয়ার জায়গা নেই। আমদের মাটি দেওয়ার জায়গাও দখল করে নিবে, এটা কেমন মানবিকতা এবং কবরস্থানে সৌর বিদ্যুতের লাইট দিয়েছে পৌরসভা থেকে। গাছ পরিচর্যা করছিল জগদিসপুরগ্রামের জরিপ উদ্দিন, তার কাছে জানতে চাওয়া হয় আপনাকে এখানে কে পাঠিয়েছে তিনি জানান রজব আলী। সেখান থেকে পাড়ায় আসা মাত্র রজবকে দেখে পল্লীর লোকজন উত্তেজিত হয়ে বলতে শুরু করেন আমাদের কবরের উপরে কেন গাছ রোপন করা লাগবে। এতদিন গাছ রোপণ করা হয়নি কেন। আমাদের কবরস্থান জীবনের বিনিময়ে হলেও রক্ষা করব। অভিযোগ অস্বীকার করে বিএনপি নেতা রজব আলী জানান যেখানে গাছ রোপণ করা হচ্ছে ওই জায়গা আমাদের ক্রয়কৃত। জমির মালিক এরফানের কাছ থেকে কিনা হয়েছে। যেখানে গাছ রোপণ হচ্ছে তার নিচে কবরস্থান। হঠাৎ করে গাছ রোপণ কেন প্রশ্ন করা হলে কোন সদ উত্তর দিতে পারেনি এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার পংকজ চন্দ্র দেবনাথের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান অভিযোগ পেয়েছে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।