যা ধারন করে মানুষ পবিত্র জীবন যাপন করতে পারে এটিই ধর্ম–দুলু

বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান একেএম আছাদুর রহমান দুলু বলেছেন, যা ধারন করে মানুষ পবিত্র জীবন যাপন করতে পারে এটিই ধর্ম। সর্ব জীবের সেবা করে হিংসা বিদ্বেষকে পরিহার করে সত্য ন্যায়ের পথে চলাই হচ্ছে প্রকৃত মানুষের পরিচয়। ধর্মের মূল ও সকল ধর্মের উদ্দেশ্য একই মানুষকে ভালোবাসা। অর্থ্যাৎ সবার উপরে মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই। মোট কথা পবিত্র ও নিস্বার্থ মানুষ হতে পারলেই প্রকৃত মানুষ হওয়া যায়।

তিনি আরো বলেন, নবান্ন উৎসব হিন্দুদের একটি প্রাচীন প্রথা। বাংলার ঐতিহ্যবাহী শস্যোৎসব নবান্ন। পালিত হয় অগ্রহায়ন মাসের প্রথম দিবসে। হিন্দু বিশ্বাস অনুযায়ী, নতুন ধান উৎপাদনের সময় পিতৃ-পুরুষ অন্ন প্রার্থনা করে থাকেন। এই কারণে হিন্দু বিধি অনুযায়ী নবান্নের শ্রাদ্ধানুষ্ঠান করে থাকেন। বাংলার কৃষিজীবী সমাজে শস্য উৎপাদনের বিভিন্ন পর্যায়ে যে সকল আচার-অনুষ্ঠান ও উৎসব পালিত হয়, নবান্ন তার মধ্যে অন্যতম।

শুক্রবার বিকেলে লতিফপুর দক্ষিণপাড়া মুকুন্দ গোঁসাই আশ্রমাঙ্গনে চিরাচরিত ঐতিহ্যবাহী প্রথা অনুযায়ী বাসি নবান্ন উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথাগুলো বলেন।

মুকুন্দ গোঁসাই আশ্রমের সভাপতি শ্রী মনিন্দ্রনাথ মোহন্তের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেকুজ্জামান রাজন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আরিফুল আলম শাওন, ১৩নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ইয়াসিন আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হায়দার টিক্কা।

আশ্রমের সাধারণ সম্পাদক শ্রী বিভূতি ভূষণ সরকার সোহাগের সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা তাঁতী লীগের সহ-সভাপতি আলামিন সরকার, সোহেল তানভীর, শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোতাহার হোসেন মিজু, আওয়ামী লীগ নেতা শরিফুল ইসলাম রাকিব, ট্রাক মালিক শাজাহানপুর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা সাব্বির হোসেন, আহাদ আলী আকাশ, সজল সরদার, নাসিম, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রানা প্রমুখ।

ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিক্ষার্থীরা যেন পথভ্রষ্ট ও দিকভ্রান্ত না হয় এ লক্ষ্যে তাদের মাঝে শ্রীমত ভাগবত গীতা বিতরণ করা হয়।

আশ্রমে দিনব্যাপি বিভিন্ন এলাকা হতে আগত ভক্তরা গুণকীর্তন ও বাসি নবান্ন উৎসবের ভোজে অংশ নেয়।