বগুড়ায় বাংলাদেশ সড়ক ও জনপথ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের সভা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি-শনিবার দুপুরে বগুড়ায় বিভিন্ন দাবিতে বাংলাদেশ সড়ক ও জনপথ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সড়ক ও জনপথ ভবন চত্বরে বাংলাদেশ সড়ক ও জনপথ শ্রমিক ইউনিয়ন বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি আতাউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন খন্দকার। সংগঠনের বগুড়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেনের পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহ আলম সহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহ আলম ও সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন খন্দকারের নিকট বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন সংগঠনের বগুড়া জেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ। দাবিগুলো হলো, ১. প্রধান প্রকৌশলী মহোদয় কর্তৃক সহজ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীদের প্রথম যোগদানের তারিখ হতে ভূতাপেক্ষভাবে নিয়মিত করার পরও ট্রেজারি কর্তৃক পেনশন ভাতাদি ও বকেয়া ভাতা গ্রহণ করতে না পারার বিষয়ে কি কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ২. জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় কর্তৃক অর্গানোগ্রাম/সেটআপে কর্মকর্তাগণের প্রবৃদ্ধি এবং ৩য়, ৪র্থ শ্রেণীর পদ কী কারণে কমানো হল এবং বিলুপ্ত করা হল সে বিষয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি কি ব্যবস্থা গ্রহণ করছে এবং তার যৌক্তিক ব্যাখ্যা। ৩. সওজ অধিদপ্তরের মামলা নম্বর ১৫০৬৮/১৯ সহ অন্যান্য মামলার অগ্রগতি কেন বাস্তবায়ন হচ্ছে না সে বিষয়ে যৌক্তিক ব্যাখ্যা। ৪. ২০১৮ সালে বাস্তবায়নকৃত মামলার কর্মচারী নিয়মিত হওয়ার পরও আজও পর্যন্ত ওয়েটিং-এ রয়েছে তাদের বিষয়ে নিয়মিত সংস্থাপনে আনয়ন কি কারনে হচ্ছে না এবং অত্র ইউনিয়নের অধীন দুজন কর্মচারী নিয়মিত করা হলো না সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ। ৫. অত্র শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের আওতাধীন দুইজন কর্মচারী মোঃ ফরিদ উদ্দিন হেলপার এবং মোঃ মহিদুর রহমান হেলপার ০১/১০/২০০০ইং তারিখে নিয়মিত সংস্থাপনে আনায়ন করা হয়েছিল কিন্তু উক্ত কর্মচারীরা নিয়মিত ২ মান পূর্বে মৃত্যুবরণ করার কারণে তারা চাকরীতের যোগদান করতে পারেনি। ফলে তাদেও পেনশন ভাতাদি প্রদান করা হয়নি এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা। ৬. মাস্টাররোল দক্ষ-অদক্ষ কর্মচারীদেরকে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে নিয়োগ বন্ধের বিষয়ে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে এবং এবং আজ পর্যন্ত চার্জ হিসেবে হানান করার বিষয়ে সহযোগী দপ্তর কি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। ৭. সংগ্রামী সাধারন সম্পাদক কামাল উদ্দিন খন্দকার নিজে একজন অফিস সহকারী। কার্যসহকারী অফিস সহকারী ও সাঁট মুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর গনের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে এবং চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ ও পদোন্নতি কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।
সভায় কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উত্থাপিত দাবিগুলোর বিশদ ব্যাখ্যা প্রদান করেন এবং আগামীতে সকল সমস্যা দ্রুত সমাধানে কার্যকরী ভূমিকা পালন করবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।