নৌকার বিজয় নিশ্চিত তাই দুষ্কৃতকারীরা হামলা করছে-জাকির হোসেন নবাব

প্রেস বিজ্ঞপ্-বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন নবাব বলেছেন, নৌকার বিজয় নিশ্চিত তাই দুষ্কৃতকারীরা হামলা করেছে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে মানুষ নৌকা প্রতীকের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। তাই পরাজয় নিশ্চিত বুজতে পেরে হামলা করে যাচ্ছে ষড়যন্ত্রকারীরা ও দুষ্কৃতকারীরা। সময়ের সাথে মানুষ এখন বুজতে শিখেছে, মার্কা প্রেম নয় আর, এখন উন্নয়নের অংশীদার হতে হবে। তাই মানুষ এখন জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছে। ঠিক তখনই আবার দুষ্কৃতকারীরা এক হয়ে এই হামলার মত বারাবর ন্যাক্কারজনক ঘটনা সৃষ্টিতে লিপ্ত রয়েছে। এরা ১৯৭১ সালে এদেশের স্বাধীনতার বিরোধীতাকারী ও ১৯৭৫ সাল বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার সাথে জড়িতদের দোসর। নইলে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ব্যহত করার সাহস পেত না।৷ শতবাধাকে ডিঙিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে কাজ করেছেন। দেশ এখন ডিজিটালে বাস্তবায়ন হচ্ছে। আর তখনই দেশে অরাজকতা সৃষ্টিতে ব্যস্ত কিছু বিপদগামী দুষ্কৃতকারীরা। যারা এই সমাজের ও দেশের উন্নয়নে অংশীদার হতে চায় না, এরা দেশটাকে আবারও পিছিয়ে দিতে চায়। তাই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এইসব দুষ্কৃতকারীদের প্রতিহত করতে হবে। সকলকে সুন্দর সমাজ উপহার দিতে জননেত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।
রোববার সন্ধ্যায় বগুড়া সদরের শাখারিয়ায় শনিবার রাতে নৌকার মার্কার প্রচারণা কার্যালয়ে হামলা, ভাংচুর ও সাধারণ মানুষকে হুমকি দেয়ার প্রতিবাদে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শাখারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শাহিদুর রহমান ফটু মাস্টারের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান সফিক, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাফুজুল ইসলাম রাজ, জেলা পরিষদের সদস্য আওয়ামীলীগ নেতা মারুফ মোর্শেদ মঞ্জু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, শাখারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী এনামুল হক রুমি, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি বাসেদ মোল্লা, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাস, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ডালিয়া নাসরিন রিক্তা, বগুড়া পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর লুৎফর রহমান মিন্টু, সাবেক মেম্বার মাহবুবুর রহমান বাদশা, জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক মুকুল ইসলাম সহ আরও অনেকে। শাখারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ ইয়াকুব আলীর পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তারা নির্বাচনী প্রচারণা কার্যালয়ে হামলা, নৌকার কর্মী সমর্থকদের হুমকী সহ সুষ্ঠু নির্বাচনে অরাজকতা সৃষ্টিকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়।