তেল ও গ্যাসের দাম কমাতে যে পদক্ষেপ নিলেন বাইডেন

তেল ও গ্যাসের মতো জ্বালানির ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধি রুখতে পদক্ষেপ নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) বাইডেন জানিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্রের আমজনতার জন্য তেল ও গ্যাসের দাম কমাতে দেশের পেট্রোলিয়াম ভান্ডার থেকে ৫ কোটি ব্যারেল তেল ছাড়া হবে। এর জেরে যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানির দাম কমবে বলে মনে করছেন অনেকে। পাশাপাশি এতে বিশ্বজুড়ে জ্বালানির দামেও প্রভাব পড়তে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। মঙ্গলবার টুইটারে বাইডেন লিখেছেন, মার্কিন পরিবারের জন্য তেল এবং গ্যাসের দাম কমাতে পদক্ষেপের কথা আজ ঘোষণা করছি। যুক্তরাষ্ট্রবাসীদের জন্য স্ট্র্যাটেজিক পেট্রোলিয়াম রিজার্ভ থেকে ৫ কোটি ব্যারেল তেল ছাড়বে জ্বালানি মন্ত্রণালয়, যাতে তেল এবং গ্যাসের দাম কমানো যায়। যুক্তরাষ্ট্রে গত সাত বছরে তেলের দাম বেড়ে সর্বোচ্চ হয়েছে। আমেরিকান অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, সোমবার ১ গ্যালন তেলের দাম ৩.৪০৯ ডলার ছুঁয়েছে। অথচ বছরখানেক আগেও এর দাম ছিল প্রতি গ্যালন ২ দশমিক ১১ ডলার। বাইডেনের এই ঘোষণার পর একটি বিবৃতিতে হোয়াইট হাউসের প্রতিশ্রুতি, ‘তেলের দাম কমাতে প্রয়োজনে অতিরিক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’ বিনিয়োগকারীদের পরামর্শদাতা সংস্থা ‘এগেন ক্যাপিটাল’-এর কর্ণধার জন কিলডাফের মতে, তেলের দাম কমাতে এটি অত্যন্ত সময়োচিত পদক্ষেপ। শীতকালের আগে উৎপাদনে ঘাটতি মেটাতে এই অতিরিক্ত তেলের যোগান সহায়ক হবে।