বগুড়ায় মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানি:-যুবক গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার:বগুড়ার ধুনট উপজেলায় আম খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে হাফেজিয়া মাদ্রসার এক শিশু শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানীর মামলায় সোহাগ মিলন ওরফে গেদা (৩৪) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ।গতকাল সোমবার সকাল ৫টার দিকে অভিযান চালিয়ে উপজেলার পারধুনট গ্রামে তার নিকট আত্মীয়র বাড়ি থেকে সোহাগ মিলনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত সোহাগ মিলন উপজেলার চালাপাড়া গ্রামের ওসমান গনির ছেলে।মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চালাপাড়া গ্রামের এক ব্যবসায়ীর কণ্যা শিশু স্থানীয় একটি হাফেজিয়া মাদ্রাসার আবাসিক ছাত্রী। মেয়েটি ১৮ পারা কোরআনের হাফেজ। একটি বিয়ে অনুষ্ঠান উপলক্ষে ১০ মে মাদ্রাসা থেকে ছুটি নিয়ে বাবার বাড়িতে যায় ওই ছাত্রী। সোহাগ মিলন ওই ছাত্রীর প্রতিবেশী।এ অবস্থায় ১৪ মে সকাল ১১টার দিকে পরিবারের সদস্যদের অগোচরে মেয়েটিকে আম খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে নিজের ঘরের পেছনে নিয়ে যায় সোহাগ মিলন। এরপর মেয়েটির শ্লীলতাহানী ঘটাতে থাকে। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে পৌছলে সোহাগ মিলন কৌশলে সটকে পড়ে।এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাদি হয়ে ওই দিনই সোহাগ মিলন গেদার বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়। থানা পুলিশ অভিযোগটি তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় রবিবার রাতে নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত করেছে।ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে সোহাগ মিলন গেদা। সোমবার দুপুরের দিকে তাকে আদালতের মাধ্যমে বগুড়া কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ