কুড়িগ্রামে ব্রম্মপুত্রের ভাঙ্গন, ঝুঁকিপূর্ণ ঘরের দেয়াল চাপায় শিশুর মৃত্যু

সাইফুর রহমান শামীম,, কুড়িগ্রাম।। কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানির স্রোতে সৃষ্ট ভাঙনে ঝুঁকিতে থাকা আবাসন প্রকল্পের ঘরের দেয়াল ভাঙতে গিয়ে ইটচাপায় এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে আরও এক শিশু। মঙ্গলবার (২১ জুন) বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাবলু মিয়া জানান, উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের ফকিরের চর আবাদন প্রকল্পে সোমবার এ ঘটনা ঘটে। মৃত শিশু আবাসনের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে মাহাবুল (১০)। ইটের আঘাতে আহত হয়েছে একই আবাসনের আয়নাল হকের ছেলে আলমগীর (১৪)। তার পায়ের হাড় ভেঙে গেছে বলে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, ঢলে সৃষ্ট বন্যায় ব্রহ্মপুত্র নদের পানির বৃদ্ধির ফলে ফকিরের চর আবাসনের উত্তর অংশে তীব্র ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙন প্রতিরোধে কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় ওই আবাসনের অনেকে ঘরের টিন ও দেয়াল ভেঙে নিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে চলে যাচ্ছেন। সোমবার একটি ঘর ভাঙার সময় শিশু মাহাবুল দেয়াল চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। মঙ্গলবার স্থানীয়ভাবে তাকে দাফন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। অপর একটি ঘর ভাঙার সময় দেয়ালের ইট ছিটকে শিশু আলমগীরের পায়ে লাগে। এতে শিশুটির পা ভেঙে যায় বলে জানিয়েছেন ওই আবাসনের বাসিন্দা ও বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড সদস্য আবু বক্কর খান। ইউপি সদস্য আবু বক্কর খান বলেন, ‘এইহানে আর থাকতে পারবো না। নদীর অবস্থা খুব খারাপ। যে ভাঙন শুরু হইছে তাতে আবাসনের উত্তর অংশ অল্পদিনের মধ্যে চইলা যাইবো (বিলীন হবে)। দক্ষিণ অংশও থাকবো না। মানুষ খুব আতঙ্কে আছে। কেউ কেউ আবাসনের ঘর ভাইঙ্গা নিয়া আবাসন ছাইড়া যাইতাছে। অনেকের যাওয়ার জায়গাও নাই।’ বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে বলে জানান এই ইউপি সদস্য। চেয়ারম্যান বাবলু মিয়া বলেন, ‘বিষয়টি আমি গত রাতে (সোমবার) জানতে পেরেছি। ওই শিশুর মৃত্যু নিয়ে কোনও পক্ষের অভিযোগ পাইনি।’