সূর্যোদয় থেকে অনুপ্রাণিত লাইট শিফট ডিজাইনের রিয়েলমি ৯ প্রো ৫জি সিরিজ

[ঢাকা, ১৭ জুলাই’২০২২] দ্রুত বর্ধনশীল, তরুণদের পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি তাদের সবচেয়ে প্রত্যাশিত রিয়েলমি ৯ প্রো ৫জি সিরিজ দেশের উন্মোচন করতে যাচ্ছে। সূর্যোদয় থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি করা হয়েছে রিয়েলমি ৯ প্রো ৫জি সিরিজের ইউনিক লাইট শিফট ডিজাইন, যা রিয়েলমি’র অগ্রগামী ডিজাইন উদ্ভাবনের প্রতিফলন। আগামী ১৯ জুলাই দেশের বাজারে উন্মোচন করতে যাচ্ছে নাম্বার সিরিজের সর্বশেষ ৯ প্রো ৫জি সিরিজ থেকে রিয়েলমি ৯ প্রো ও ৯ প্রো প্লাস। লাইভ লঞ্চ ইভেন্টে অংশ নিয়ে রিয়েলমি ৯ প্রো প্লাস ৫জি জিতে নেওয়ার জন্য ক্লিকঃ https://cutt.ly/BLbpSPv
এই লাইট শিফট ডিজাইনের অন্যতম আকর্ষণ এর সানরাইজ ব্লু রঙ, যা সূর্যের আলোয় রঙ পরিবর্তন করে। সাধারণ সূর্যের আলো বা ইউভির সংস্পর্শে এলে ডিভাইসটির পেছনের অংশ মাত্র ৩ সেকেন্ডে নীল থেকে লাল রং ধারন করে এবং সূর্যের আলো না পেলে এটি মাত্র ২ থেকে ৫ মিনিটে আবার নীল রঙে ফেরত চলে যায়। ফটোক্রোমিক প্রিন্সিপালের কারণে অতিবেগুনি (ইউভি) রশ্মির সংস্পর্শে আসামাত্র এই ফোনের পেছনের কাভারের রং পরিবর্তন হয়।
স্মার্টফোনে সূর্যোদয়ের প্রভাব ধারণ করা কোনো সহজ কাজ ছিল না। একটি তরুণ স্মার্টফোন ব্র্যান্ড হিসেবে রিয়েলমি সবসময় ট্রেন্ডি ডিজাইনের স্মার্টফোন বাজারে আনতে চেষ্টা করে। এজন্য রিয়েলমি-কে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ করতে হয়েছে, যেমন – রং পরিবর্তনকারী লেয়ায়ের পুরুত্ব, রং পরিবর্তন করতে পারে এমন একটি ফর্ম, কাঁচের সঙ্গে সংযুক্ত থাকার শক্তি, কার্যকর তাপমাত্রা এবং এর পাশাপাশি বিভিন্ন রকম পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে। ফোনের সমস্যাগুলো সফলভাবে দূর করতে ২০০ বারেরও বেশি চেষ্টা করা হয়েছে, যেমন অতি দ্রুত রং পরিবর্তন ও বিবর্ণ হওয়ার সক্ষমতার জন্য এই ফোনের গঠন নিয়ে কাজ করতে এবং সঠিক রঙ ও রং পরিবর্তনকারী লেয়ায়ের পুরুত্বের মধ্যে সমন্বয় করতে উদ্ভাবন করতে হয়েছে।
২০০ টেমপ্লেটের পর রিয়েলমি প্রথমবারের মতো দুই স্তরের ফটোক্রোমিক প্রক্রিয়া তৈরী করতে সক্ষম হয়, যা এই ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে সবচেয়ে ভালো মানের দুই স্তরবিশিষ্ট ক্রোমিক বন্ডিং প্রক্রিয়া। রিয়েলমি’র প্রকৌশলীরা সৃজনশীলভাবে ফটোক্রোমিক লেয়ার ও গ্লাসের সাথে অর্গানিক কম্পোজিট লেয়ার যুক্ত করে কেবল এর ঘনত্বই নিশ্চিত করেনি, বরং একই সাথে রঙ বিকিরণের সক্ষমতা ৪০% পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে।
এসব চমকপ্রদ ইফেক্ট ডিভাইসটিকে কেবল আকর্ষণীয়ই করেনি, বরং এই ফোন রিয়েলমি নাম্বার প্রো সিরিজের ডিভাইসগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পাতলা। এটার পুরুত্ব মাত্র ৭.৯৯ মিলিমিটার এবং ওজন মাত্র ১৮২ গ্রাম। অ্যাডভান্সড স্ট্রাকচারাল স্ট্যাকিং প্রযুক্তি ও ভালো মানের উপাদান রিয়েলমি ৯ প্রো প্লাস ৫জি-কে করেছে আরও হালকা, দেখতে আকর্ষণীয় এবং ধরতে আরামদায়ক।
স্ট্র্যাটেজি অ্যানালিটিকসের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, বর্তমান সময়ের স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলোর মধ্যে শিপমেন্টের পরিমাণ বিচারে রিয়েলমি’র নাম্বার সিরিজ ২০২১ সালের ৩য় প্রান্তিকে ৪র্থ অবস্থান দখল করেছে। সবচেয়ে কম সময়ে ৪ কোটি শিপমেন্টের মাইলফলকে পৌঁছানো অন্যতম দ্রুত বর্ধনশীল অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন সিরিজ হল রিয়েলমি নাম্বার সিরিজ এবং ২০১৮ সালে রিয়েলমি ১ চালু করার পর মাত্র ১৪ প্রান্তিকের মধ্যে রিয়েলমি এই মাইলফলকে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছে।