ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে মামলায় নাম জড়ানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার:উদ্দেশ্যপ্রনোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে মামলায় নাম জড়ানোর প্রতিবাদ এবং মামলা থেকে নাম প্রত্যাহারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে উক্ত দাবী করেন নওগাঁ শহরের পার-নওগা ঈদগাহ পাড়ার মৃত আব্দুস সামাদ এর ছেলে মোঃ নূর-ই আলম মিঠু।লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, নওগা সদর উপজেলার বর্ষাইল ইউনিয়েনে ভোটের দিনে ভোটের ফলাফল নিয়ে সংঘর্ষ হয় বলে আমি শুনেছি। সংঘর্ষের পরের দিন ১১নভেম্বর ২১ থানায় ৩৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত বেশ কয়েকজনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়। সেই মামলায় ২১ নং আসামীর নাম দেয়া হয়েছে মিঠু (৪৮), পিতা-অজ্ঞাত, সাং-তাজের মোড়। সেই মামলায় আসামী দেখিয়ে গত ১৯মে আমাকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়। পরে গত ৫ জুলাই হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়ে ৪৫ দিন বিনা দোষে হাজত খেটে নওগাঁ জেলাহাজত থেকে বের হই।তিনি বলেন, প্রকৃত অর্থে আমি একজন ব্যবসায়ীও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত। গত ১০/১১/২০২১ তারিখে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নওগা সদর উপজেলার তিলকপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমার চাচা মো: আব্দুল মজিদ স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। আমি চাচার নির্বাচনে তিলকপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দায়িত্বে ছিলাম এবং সেই দিন সাড়া দিন এবং গভীর রাত পর্যন্ত ফলাফল নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। বিষয়টি এলাকাবাসী, নির্বাচন প্রক্রিয়ায় জড়িত সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অনেকের সঙ্গেই দেখা ও কথাবার্তা হয়েছে। অনেকেই জানেন। এছাড়া বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগ। মামলায় বর্ণিত দিন ও সময়ে আমি কোথাই ছিলাম সেটা খুব সহজেই বের করা সম্ভব। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা খুব সহজেই সেটা বের করতে পারবেন বলে আমি বিশ্বাস করি। এ ছাড়া তিলকপুর ইউনিয়ন থেকে বর্ষাইল ইউনিয়নের দূরত্ব প্রায় ২০/২৫ কি.মি.। মামলায় বিবাদীদের আমি চিনি না, জানি না। তাদের সাথে আমার কোন ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক কোন সম্পর্ক নেই। কেন এবং কি কারনে আমি ঐ মামলায় আসামী হলাম সেটা আমি সহ নওগাঁবাসী কেউ জানে না। শুধুমাত্র আমাকে সামাজিক ভাবে হেউ প্রতিপন্ন করা, ব্যবসায়িক ও পারিবারিক ভাবে ক্ষতিগ্রন্থ করার জন্য একটি কুচক্রী মহল শুধুমাত্র আমার ডাক নাম ব্যবহার করে মামলায় আমাকে অন্যায়ভাবে জড়ানো হয়েছে। আমি এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই। এবং আপনাদের মাধ্যমে এই মামলা সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট বিশেষ আবেদন। এই মামলা থেকে আমাকে অব্যাহতি দিয়ে আমার ব্যবসা ও পরিবার-পরিজন নিয়ে বাংলাদেশের একজন নাগরিক হয়ে ভালো ভাবে বেঁচে থাকার সুযোগ করে দিবেন।