বদলগাছীতে মানা হচ্ছেনা সরকারের সিদ্ধ্যান্ত,২৪ ঘন্টায় ৮ ঘন্টা লোডশেডিং,জনজীবন অতিষ্ট

আবু সাইদ বদলগাছী-বিদ্যুৎ নিয়ে সরকারের বেঁধে দেওয়া নিয়ম নীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে প্রথম দিন মঙ্গলবারেই বিদ্যুৎ বিভাগ নওগাঁর বদলগাছীতে ২৪ ঘন্টায় ৮ ঘন্টা লোডশেডিং দিয়েছে। এতে করে প্রচন্ড তাপদাহে ভাপসা করমে জনজীবন অতিষ্ট হয়ে উঠেছে।
বিদ্যুৎ সাশ্রয় ও উৎপাদন কমিয়ে সরকার দেশের অর্থনীতিকে গতিশীল রাখার স্বার্থে ডিজেলে চালিত বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র গুলি সাময়ীক বন্ধ রেখে ভূর্তুকী কমিয়ে ব্যায় কমিয়ে আনার চেষ্টা শুরু করেছে। বিদ্যুৎ নিয়ে সরকারের এই সিদ্ধ্যান্তকে জনসাধারণের মেনে নিতে কষ্ট হলে ও দেশের স্বার্থে মেনে না নেওয়ার কোন উপায় ছিল না।
আর এ সুযোগে বিদ্যুৎ বিভাগের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুর্ন করার জন্য সরকারের বেঁধে দেওয়া ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১ থেকে ২ ঘন্টা লোডশেডিং দিনের বেলা ও সন্ধ্যায় সম্মনয় করে দেওয়ার কথা থাকলে ও এর পরিবর্তে বিদ্যুৎ বিভাগ প্রথম দিন মঙ্গলবারে দিনে ও সন্ধার পর রাত মিলে প্রায় ৮ ঘন্টার বেশি লোডশেডিং দিয়েছে। কখোন ও এক দুই ঘন্টা পর পর লোডশেডিং আবার রাত ১০ টা থেকে রাত আড়াইটা পর্যন্ত এক টানা সাড়ে ৪ ঘন্টা লোডশেডিং দিয়ে প্রচন্ড ভাপসা গরমে মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে। ফলে একই রাতে উপজেলার অনেক বৃদ্ধ ও হাইপ্রেসারের লোকজন এবং শিশুরা জ্বর সর্দি কাশি সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। এলাকায় খবর নিয়ে জানা গেছে অনেক লোকজন ঐ সব রোগে আক্রান্ত হয়ে স্থানীয় ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিচ্ছে।
বিদ্যুৎ এর এমন লোডশেডিং বিষয়ে সরকারের সিদ্ধ্যান্তর সাথে বাস্তবে মিল না থাকায় এলাকার সচেতন মহল বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজনকে কঠোর ভাবে দায়ী করছে।
এ বিষয়ে নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি বদলগাছী জোনাল অফিসের ডিজিএম আহসান হাবিব এর সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করে সরকার ঘোষিত ১ ও ২ ঘন্টা লোডশেডিং এর পরিবর্তে ২৪ ঘন্টায় ৮ থেকে ৯ ঘন্টা লোডশেডিং কেন দেওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে সে জানায়, চাহিদানুযায়ী বিদ্যুৎ সাপ্লাই না পওয়ায় দির্ঘ্যে সময় ধরে ঘন ঘন লোডশেডিং দিতে হচ্ছে। তিনি আর ও জানান, বদলগাছীতে দিনের বেলা বিদ্যুৎ এর চাহিদা ১০ থেকে ১১ মেঘাওয়াট। সেখানে বিদ্যুৎ সাপ্লাই পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৪ থেকে ৫ মেঘাওয়াট। আর রাতে বিদ্যুৎ এর চাহিদা ১৬ মেঘাওয়াট। সেখানে সাপ্লাই পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৭ থেকে ৮ মেঘাওয়াট। বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি না পেলে পল্লী বিদ্যুৎতে সাপ্লাই ও বাড়বে না। কেবল মাত্র বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি পেলেই লোডশেডিং থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।