গাবতলীতে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ভিজিএফ’র চাল আত্মসাতের অভিযোগ

গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার গাবতলী উপজেলার দূর্গাহাটা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীদুল কবীর টনির বিরুদ্ধে গত ঈদুল আযহা ও ঈদুল ফিতরের ভিজিএফ’র চাল বিতরণে বিভিন্ন অনিয়ম ও আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ বিষয়ে গত ২০জুলাই বগুড়া জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগী ও দূর্গাহাটা ইউনিয়নবাসী। এরঅনুলিপি দিয়েছেন দুদক চেয়ারম্যান ঢাকা, দুদক বগুড়া জেলা কার্যালয়, জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা (ডিআরও), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বরাবর। ২১জুলাই বগুড়া জেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (ডিআরও) এবং ২৪ জুলাই গাবতলীর ইউএনও বরাবরে আলাদাভাবে লিখিত অভিযোগ করেছেন দূর্গাহাটা ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন মিঠু।
অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, দূর্গাহাটা ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদুল কবীর টনি ২০২১-২০২২ অর্থবছরে গত ঈদুল আযহা ও ঈদুল ফিতরে ২৬’শ ১০জনের মাঝে ভিজিএফ’র চাল বিতরণের যে তালিকা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে জমা দিয়েছেন, তার অর্ধেকেরও বেশী ভুয়া এবং গরীব দুখীদের মাঝে সঠিকভাবে বিতরণ করেন নাই। তাছাড়া ওই নামের তালিকায় বেশকিছু মৃত ব্যক্তিদের নামও রয়েছে। অভিযোগে উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘জমাকৃত তালিকার ৩৭৫নম্বরে রয়েছে লালখাঁপাড়া গ্রামের মৃত আবেদ আলী মন্ডলের ছেলে আজাহার আলীর নাম। যিনি গত দুই বছর আগে মারা গেছেন। অনুরূপভাবে ৫৩১নম্বর সিরিয়ালে রয়েছে পনিরপাড়া গ্রামের মৃত বাকের সরকারের ছেলে নুরুল ইসলামের নাম। যিনি গত তিনবছর আগে মৃত্যুবরণ করেছেন। এ রকম অনেক মৃত ব্যক্তির নাম তালিকায় রয়েছে। এছাড়াও ওই তালিকায় অনেক ভুয়া নাম রয়েছে। যেমন-তালিকার ৫৩২নম্বরে রয়েছেন, দূর্গাহাটা গ্রামের খাদেজা বেওয়া, ৫৩৩নম্বরে মমতাজ বেগম, ৯৪নম্বরে মিজানুর রহমানসহ আরও প্রায় ১’শ। আসলে এরকম নামে কোন লোকই নেই ওই দূর্গাহাটা গ্রামে।’ ইউনিয়নের সোলার তাইর গ্রামের ২’শ ৮৬জন লোকের নাম বিতরণ তালিকায় থাকলেও চাল পায়নি প্রায় ২’শ ৩৬জন ব্যক্তি। এ তালিকাতেও বহু ভূয়া নাম রয়েছে। এ ব্যাপারে ভিজিএফ’র চাল বিতরণের দায়িত্বশীল ট্যাগ অফিসার উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম বলেন, ঈদুল আযহার আগে দুই দিন ৭ ও ৮ জুলাই চাল বিতরণ করা হয়েছে। চাল বিতরণের নামের তালিকা দেখেননি। তবে ৭ জুলাই দূর্গাহাটা ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদুল কবীর টনিকে স্লিপের মাধ্যমে চাল বিতরণ করতে তিনি দেখেছেন বলে জানান। কিন্তু তিনি ৮ জুলাই ভিজিএফ এর চাল বিতরণস্থলে উপস্থিত ছিলেন না। এ ব্যাপারে দূর্গাহাটা ইউপি চেয়ারম্যান শাহীদুল কবীর টনি তাঁর বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। তিনি আসলে পরিস্থিতির শিকার। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম রাশেদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে সত্যতা জানা যাবে। এ প্রসঙ্গে গাবতলীর ইউএনও মোছাঃ রওনক জাহান বলেন, ২৪জুলাইয়ে এ সংক্রান্ত একটি লিখিত অভিযোগ তিনিও হাতে পেয়েছি। এছাড়া ২০জুলাইয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট একটি অভিযোগ করেছেন তার অনুলিপিও হাতে পেয়েছি। তবে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান।