ভোটে হেরে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ

মান্দা (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দায় পানিয়াল আদর্শ ডিগ্রী কলেজের গভর্নিং বডির ভোটে হেরে এক সদস্য অধ্যক্ষ কায়মুল হক মন্ডলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে সংবাদ প্রকাশ করেছেন।
অভিযোগকারী উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউপির সাবাই গ্রামের মৃত জনৈক তছের আলীর ছেলে রেজাউল করিম।
তিনি গত ১৫ জুন অত্র কলেজের, ছাত্র অভিভাবক সদস্য পদে ভোট করে হেরে যায়। সেই ক্ষোভ থেকে রেজাউল করিম অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেন।
অধ্যক্ষ কায়মুল হক জানান, গত ১৫ জুন ২০২২ খ্রিষ্টাব্দে অত্র কলেজের গর্ভনিং বডির নির্বাচন হয়। সেই নির্বাচনে ছাত্র অভিভাবক পদে ৫ জন, শিক্ষক প্রতিনিধি ৩ জন এবং প্রতিষ্ঠাতা প্রতিনিধি ১ জন অংশ গ্রহণ করেন। ছাত্র অভিভাবক ৫ জনের মধ্যে ৩ জন নির্বাচিত হয়। ৫ জনের মধ্যে রেজাউল করিম হেরে যায়।
হেরে যাওয়ার পর থেকে তিনি আমার ও কলেজের মান ক্ষুন্ন করতে বিভিন্ন অনিয়মিত ও দূর্নীতির কথা উল্লেখিত করে সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন , চেক জালিয়াতি ও ভাওচার তৈরি করে ১ কোটি ৭১ লক্ষ টাকা আত্নসাত করার কথা বলা হয়েছে । এছাড়াও তৎকালীন কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি কা ন কুমার প্রামানিককে না জানিয়ে স ায় ডিপোজিট থেকে টাকা উত্তোলনসহ দুটি চেকের মাধ্যমে তিন লক্ষ টাকা উত্তোলন এবং নিয়োগ বানিজ্যের কথা উল্লেখ করেছেন। যা সম্পুন্ন মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্যে প্রণোদিত।
মিথ্যা তথ্যের যোগানদাতা আমার কলেজের সাচিবিক বিদ্যার প্রভাষক এস.এম. এ খায়ের। সে সাচিবিক বিদ্যার জাল সনদ দিয়ে চাকরি করে যাচ্ছেন। মিনিষ্ট্রি অডিটে তার সনদ জাল প্রমানিত হওয়ার পর থেকে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে, দাবানোর জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে আমি বিব্রত ও কম্পিত নয়। সংবাদ প্রকাশের পর অধ্যক্ষ বলেন, দূর্নীতি প্রমাণ করতে পারলে শাস্তি মেনে নিবো। ভূল তথ্য নিয়ে সংবাদ প্রকাশ না করার  জন্য বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।
এব্যাপারে মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পানিয়াল কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি আবু বাক্কার সিদ্দিক বলেন, অনিয়ম দূর্নীতির বিষয়ে কিছু জানি না এবং এ সংক্রান্ত বিষয়ে কোন অভিযোগ পায়নি।