ইউরিয়া সারের দাম মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সাতমাথায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়

ইউরিয়া সারের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধি সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে, স্বল্পমূল্যে ভেজালমুক্ত সার প্রকৃত কৃষকের কাছে পৌঁছানোর দাবিতে- সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্ট/বাসদ বগুড়া জেলা শাখার উদ্যোগে আজ: ০৩ আগষ্ট ২০২২ইং তারিখ বিকাল:৪:৩০টায় সাতমাথায় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেণ সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্ট বগুড়া জেলা সভাপতি কৃষক নেতা মাসুদ পারভেজ, বক্তব্য রাখেন বাসদ বগুড়া জেলা আহ্বায়ক কমরেড অ্যাড.সাইফুল ইসলাম পল্টু, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট বগুড়া জেলা সভাপতি সাইফুজ্জামান টুটুল,সমাজতান্ত্রিক ক্ষেতমজুর ও কৃষক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক কৃষক নেতা শহিদুল ইসলাম , সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট বগুড়া জেলা সভাপতি ধনঞ্জয় বর্মন প্রমূখ নেতৃবৃন্দ।
সমাবেশে কমরেড সাইফুল ইসলাম পল্টু বলেন, ইউরিয়া সারের দাম কেজি প্রতি ৬ টাকা বা বস্তা প্রতি ৩০০ টাকা অর্থাৎ ৩৮% বৃদ্ধি জনগণ মানে না, অবিলম্বে মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করতে হবে। তিনি আরও বলেন, পুরো করোনাকালে অন্যান্য সবকিছু স্থবির হয়ে পড়লেও কৃষক তার উৎপাদনের চাকা সচল রেখেছে এবং গোটা দেশের মানুষের মুখের আহার যুগিয়েছে। এমনিতেই কৃষি উপকরণের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি, ফসলের ন্যায্য মূল্য না পাওয়া ইত্যাদির ফলে গোটা কৃষিব্যবস্থা চরম সংকটের মধ্যে আছে। তার উপর এখন আবার জ্বালানি তেলের সংকট, লোড শেডিং এর ফলে গোটা সেচ ব্যবস্থা ব্যাহত হবে। শ্রাবণ মাসের ৩ সপ্তাহ পার হতে চলেছে কিন্তু পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হওয়ায় কৃষক রোপা আমন বপন করা নিয়েও অনিশ্চয়তার মধ্যে আছে। এর উপরে সারের এই মূল্যবৃদ্ধি মরার উপর খাড়ার ঘা হয়ে দাঁড়াবে।
কমরেড মাসুদ পারভেজ বলেন, যেখানে প্রধানমন্ত্রী বলছেন এক ইঞ্চি জমিও খালি রাখা যাবে না, উৎপাদন বাড়াতে হবে আবার তার সাথে এই মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত সাংঘর্ষিক। যেখানে কৃষিতে ভর্তুকি বাড়ানো উচিত তা না করে এই মূল্য বৃদ্ধির ঘটনা গোটা কৃষি উৎপাদনকে ব্যাহত করবে, খাদ্য নিরাপত্তাকে হুমকির মুখে ফেলবে। নেতৃবৃন্দ বলেন চলমান বৈশ্বিক এই সংকটকালে কৃষি ও কৃষি উৎপাদনই হতে পারে রক্ষাকবচ।
অন্যন্য নেতৃবৃন্দ বলেন, অবিলম্বে সারের এই অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে স্বল্পমূল্যে ভেজালমুক্ত সার প্রকৃত কৃষকের কাছে পৌঁছানোর দাবি করেন। একই সাথে দেশের সকল প্রগতিশীল কৃষক ক্ষেতমজুর সংগঠন ও সর্বস্তরের কৃষক-ক্ষেতমজুর আপামর জনসাধারণকে মূল্য বৃদ্ধির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।