ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের বীজ প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্র ঘুরে দেখলেন বগুড়া প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার:ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের বীজ প্রক্রিয়াজাতকরণ কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন বগুড়ার সংবাদকর্মীরা। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কাহালুর দরগাহাট এলাকায় এ কেন্দ্রে পরিদর্শনে নেতৃত্ব দেন দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মোজাম্মেল হক লালু ও বগুড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহমুদুল আলম নয়ন। এসময় বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রাগেবুল আহসান রিপু, বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন মিন্টু, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি কৃষিবিদ ড. সিদ্দিকুর রহমান, মিসেস সিদ্দিকুর রহমান, বৃহত্তর বগুড়া সমিতি ঢাকার সাবেক সাধারণ সম্পাদক একে এম কামরুল ইসলাম ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ.ফ.ম জিন্নাতুল ইসলাম তপন, দৈনিক করতোয়ার বার্তা সম্পাদক ও সাবেক সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শংকর, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জেএম রউফ, বগুড়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মাসুদুর রহমান রানা, আব্দুস সালাম বাবু, এস এম কাওছার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজেদুর রহমান সিজু, তোফাজ্জল হোসেন, দপ্তর সম্পাদক শফিউল আযম কমল, কোষাধ্যক্ষ কমলেশ মহন্ত শানু, পাঠাগার সম্পাদক এইচ আলিম, ক্রীড়া সম্পাদক লতিফুল করিম সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য ঠান্ডা আজাদ, ফরহাদুজ্জামান শাহী, তানসেন আলম, নাজমুল হুদা নাসিম ও আব্দুর রহিম, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিনের বগুড়া অফিস প্রধান আব্দুর রহমান টুলু, দৈনিক প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার আনোয়ার পারভেজসহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের প্রতিষ্ঠা বগুড়ার সোনাতলার সন্তান কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান ১৩ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত এই কেন্দ্রের বিভিন্ন বীজাগার ও প্রকল্প ঘুরিয়ে দেখান। পরে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তাদের কাজ ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা সবার মাঝে উপস্থাপন করা হয়। এরপর বগুড়া প্রেসক্লাবের নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। শেষে বগুড়া প্রেসক্লাবের ভবন নির্মাণ কাজের জন্য ৫লাখ টাকার অনুদানের চেক প্রদান করে ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার। মূলত ২০০২ সালে কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান প্রতিষ্ঠা করেন ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার। পরে কাহালুর দরগাহাটে ১৩একর জমির ওপর অত্যাধুনিক বীজ প্রক্রিয়াজাত কেন্দ্র গড়ে তোলেন। এই কেন্দ্রে হাজার হাজার টন বীজ প্রক্রিয়াজাত, সংরক্ষণ ও প্যাকেটজাতকরণ। এর পাশাপাশি দেশের সবেচেয়ে বেশী ফলনশীল হাইব্রিড ধান ‘জনকরাজ’, গরুর খুরারোগ প্রতিরোধে ওয়ান ফার্মার ভ্যাকসিন আরিয়া আনাসহ সিংগাপুরের সাথে জয়েন্ট ভেনচারে ওয়ান আইসিটি প্রতিষ্ঠা, নির্মল পরিবেশে রুচিশীল আবাস হিসেবে চায়না গার্ডেন সিটি লিমিটেড তৈরি করেছে ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার। এছাড়া ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ার ২০২০ সালে বগুড়ার শেরপুরের বালেন্দা গ্রামে ১০০ বিঘা জমির উপর গড়ে তোলে পৃথিবীর সবেচেয়ে বড় শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু শিল্প যা গিনেজ ওয়ার্ল্ডে রেকর্ড করে। এর পাশাপাশি ন্যাশনাল এগ্রিকেয়ারের প্রতিষ্ঠাতা কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান রাষ্ট্রপতি শিল্প পদক, গ্লোবাল উদ্যোক্তা এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ