দুপচাঁচিয়ায় অটোভ্যান চালক হারুন হত্যা মামলায় ২জন গ্রেপ্তার

দুপচাঁচিয়া(বগুড়া) প্রতিনিধিঃ-বগুড়ার দুপচাঁচিয়ায় আলোচিত অটোভ্যান চালক হারুন হত্যা মামলার পলাতক দুইজন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন দুপচাঁচিয়া সদর ইউনিয়নের ভাটাহার গ্রামের রেজাউল করিম ওরফে রাজ্জাকের ছেলে আয়নুল হক(৩৮) ও একই ইউনিয়নের কুশ্বহর গ্রামের হেলাল ওরফে চান্দুর ছেলে সেলিম ওরফে পল্টু(৪৫)।
গত ২২সেপ্টেম্বর রাতে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ইপিজেড থানাধীন হালিশহর এলাকায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) আব্দুর রশিদ সরকার এর নেতৃত্বে এসআই বকুল হোসেন, এএসআই মামুনুর রশিদ সঙ্গীয় ফোর্সের সমন্বয়ে ৩দিনের প্রচেষ্টায় তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় তাদেরকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন। গ্রেপ্তারকৃতরা এ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করে এবং তাদের দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক ২৩সেপ্টেম্বর দুপুরে ভাটাহার এলাকায় একটি চাতালের পাশ থেকে নিহত হারুনের অটোভ্যানের চুরি যাওয়া ৪টি ব্যাটারী উদ্ধার করেন।
প্রসঙ্গতঃ গত ২৮আগস্ট রাতে অটোভ্যান চালক হারুন অর রশিদ(৪২)কে হত্যা করে ধান ক্ষেতে ফেলে রেখে যায়। পরদিন ২৯আগস্ট সকালে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে এবং ঘটনাস্থল থেকে ৩কিলোমিটার দূরে একটি বাগান থেকে হারুনের অটোভ্যানটি পরিত্যাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। এ ঘটনার ৫দিনের মাথায় ২সেপ্টেম্বর রাতে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে উপজেলার আশুঞ্জা গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে মুক্তার হোসেন(৪০) ও পৌর এলাকার জয়পুরপাড়া মহল্লার জিল্লুর রহমানের পালকপুত্র শাকিল(২৫)কে গ্রেপ্তার করে।
দুপচাঁচিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বলেন, গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের ২৩সেপ্টেম্বর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এই দুই আসামী গ্রেপ্তার ও ব্যাটারী উদ্ধারের মধ্যে দিয়ে হারুন হত্যা মামলার তদন্ত কার্যক্রম অনেকখানি এগিয়ে গেছে। দ্রুত সময়ে পুরো তদন্ত শেষ করে বিজ্ঞ আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।